• শনিবার   ১০ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ২৭ ১৪২৭

  • || ২৮ শা'বান ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ স্বীকৃতি পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাবর্তন জলবায়ু কূটনীতিতে নতুন গতির সঞ্চার হবে প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ সরকার গঠিত হয় একাত্তরের ১০ এপ্রিল ডি-৮ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে হবে:প্রধানমন্ত্রী করোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ডি-৮ এর প্রতি প্রধানমন্ত্রী আহ্বান আজ বৈঠকে বসছেন ডি-৮ শীর্ষ নেতারা মানুষ বাঁচাতে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী টিকাদানে বিশ্বের শীর্ষ ২০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী বাণিজ্য সম্প্রসারণে মার্কিন সরকারের সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী

উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে বাংলাদেশকে বিমসটেকের অভিনন্দন

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৪ মার্চ ২০২১  

দি বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি-সেক্টোরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনোমিক কো-অপারেশন (বিমসটেক) স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের জন্য আজ বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। বিমসটেকের নব-নিযুক্ত মহাসচিব (এসজি) তেনজিন লেকফেল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাতকালে এই অভিনন্দন জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বৈঠকের পর গণমাধ্যমকে ব্রিফ করেন।

বিমসটেক মহাসচিব শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে সফলভাবে কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলা করে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করায় তাঁর সরকারের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

প্রধানমন্ত্রী আশা করেন যে- আগামী দিনগুলোতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির আরো উন্নতি হবে। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে ভূটানের অবদান কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, ভূটান বাংলাদেশের স্বাধীনতা স্বীকৃতি দানকারী প্রথম দেশ।

বিমসটেকের নয়া মহাসচিব, যিনি একজন ভূটানী, শেখ হাসিনাকে ভূটানের রাজা ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান। বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীও ভূটানের রাজা ও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য-সচিব ড. আহমদ কায়কাউস উপস্থিত ছিলেন।

ভূটানের নাগরিক তেনজিন লেকফেল ২০২০ সালের ৬ নভেম্বর বিমসটেকের মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। বিমসটেক দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাতটি দেশের সমন্বয়ে গঠিত একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন। বিমসটেকভূক্ত দেশগুলোতে ১ দশমিক ৫ বিলিয়ন লোকের বাস।