• রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৬ ১৪২৭

  • || ১৬ রজব ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা

ক্যাসিনো খালেদের বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট দাখিল

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৭ জানুয়ারি ২০২১  

অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় যুবলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া ওরফে ক্যাসিনো খালেদ অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সম্প্রতি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম এ অভিযোগপত্র দাখিল করেন। বৃহস্পতিবার আদালতের দুদকের সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। 

অভিযোপত্রে খালেদের বিরুদ্ধে ৪২ কোটি ৭৫ লাখ ৭০ হাজার ৭৫৪ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করে তা ভোগ দখলে রাখার অভিযোগ করা হয়। আর অবৈধভাবে অর্জিত ৮ কোটি ৭৪ লাখ ৩৩ হাজার ৯৬ টাকা মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডে পাচারের তথ্যও অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়। বিদেশে পাচার করা খালেদের অর্থের সংশ্লিষ্ট তথ্য সংগ্রহের জন্য মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডের সরকারের কাছে এমএলএআর পাঠানো হয়েছে।  তথ্যাদি পেলে আদালতে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেয়া হবে।  অভিযোগপত্রে ৪৫ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।

২০১৯ সালের ২১ অক্টোবর খালেদের বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীর আলম কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ মামলাটি করেন।  মামলায় খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া অবৈধভাবে মোট ৫ কোটি ৫৮ লাখ ১৫ হাজার ৮৫৯ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন এবং তা নিজ দখলে রেখেছেন বলে অভিযোগ আনা হয়। তবে অভিযোগপত্রে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের পরিমাণ বেড়ে যায় বহুগুণে। 

অবৈধ জুয়া ও ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে ২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকা দক্ষিণ মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। গুলশানে তার বাড়ি থেকে একটি শটগান, দুটি পিস্তল, শটগানের ৫৭টি গুলি ও ৫৮৫টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। পরে যুবলীগ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়।

পরদিন দুপুরে তাকে গুলশান থানায় হস্তান্তর করা হয়। একই দিন র‌্যাব-৩ এর ওয়ারেন্ট অফিসার গোলাম মোস্তফা বাদী হয়ে গুলশান থানায় অস্ত্র, মাদক ও মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে তার বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করেন। অন্যদিকে মতিঝিল থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেন র‌্যাবের ওয়ারেন্ট অফিসার চাইলা প্রু মার্মা।

এদিকে ঢাকার অতিরিক্ত তৃতীয় মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালতে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের দায়ের করা মামলার বিচার চলছে। গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি খালেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। এছাড়া আরেকটি মাদক মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য রয়েছে। 

বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ১৭ জানুয়ারি দিন ধার্য রয়েছে। গত বছরের ১৯ অক্টোবর আদালত অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন।