• রোববার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৫ ১৪২৭

  • || ০২ সফর ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
শীতে করোনা পরিস্থিতি অবনতির ইঙ্গিত, এখনই প্রস্তুতির নির্দেশ ব্যাংকটা যেন ভালোভাবে চলে সেদিকে দৃষ্টি দিবেন : প্রধানমন্ত্রী অফিসের সামনে নেতাকর্মীদের মাথা ফাটিয়ে আন্দোলন করে বিএনপি প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে বিভিন্ন ব্যাংকের অনুদান করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩২, শনাক্ত ১৫৬৭ দেশে-বিদেশে ইসলাম প্রচারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন আল্লামা শফী আহমদ শফী কওমি শিক্ষার আধুনিকায়নে ভূমিকা রেখেছেন : প্রধানমন্ত্রী সীমান্তহত্যা বন্ধে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেয়ার প্রতিশ্রুতি বিএসএফের পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ শুল্ক কমানোর চিন্তা: অর্থমন্ত্রী সরকার ওজোনস্তর রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে: পরিবেশ মন্ত্রী
১৪৪

জাজিরায় জৈব সার ব্যবহার বিষয়ক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ মাটির প্রাণ খ্যাত জৈব সারের জমিতে ব্যবহার বৃদ্ধি ও উৎপাদন প্রযুক্তি সম্প্রসারণ করতে সরকারের এনএটিপি-২ প্রকল্পের খরিপ-১ মৌসুমের ট্রাইকো কম্পোস্ট সারের প্রদর্শনীর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৯ সেপ্টেম্বর জাজিরা উপজেলার দিয়ারা নাওডোবা ব্লকে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবসে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে জৈব সারের গুনাগুন সহ উৎপাদন প্রক্রিয়া এবং কৃষক মতামতে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন জাজিরা উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ জামাল হোসেন।

নাওডোবা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ নুর মোহাম্মদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ওই ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি অফিসার মোঃ দেলোয়ার হোসেন ও মোঃ আজহারুল ইসলাম। কৃষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন তেরাব আলী, আছিয়া বেগম ও জুলমত খা। মাঠ দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে এলাকার শতাধিক কৃষক অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ জামাল হোসেন বলেন, আমরা জমিতে রাসায়নিক সার ব্যবহারের ফলে জমির উর্বরা শক্তি হারিয়ে ফেলছি। বর্তমান কৃষক বান্ধব সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা কৃষক ও কৃষির কথা অনুভব করে মাটির উর্বরা শক্তি বৃদ্ধির জন্য জমিতে জৈব সারের ব্যবহার বৃদ্ধি ও উৎপাদন প্রযুক্তি সম্প্রসারণ করতে সরকারের এনএটিপি-২ প্রকল্পের প্রকল্প শুরু করেছেন। জৈব সার জমিতে ব্যবহারের ফলে, আর্থিক সাশ্রয় হয়। গুনগত দিক থেকে রাসায়নিক সারের চেয়ে জমি উর্বরা শক্তি বৃদ্ধিপায়। সেচ খরচ কম হয়।

উপজেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর