• বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

  • || ২১ রজব ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
দেশের উন্নয়নে গবেষণা ও বিজ্ঞানের বিবর্তন অপরিহার্য: প্রধানমন্ত্রী করোনা পারে নাই, আর কেউ অগ্রযাত্রা থামাতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানাল জাতিসংঘ দেশেই ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন ও রফতানির পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ‘অবৈধভাবে যারা ক্ষমতায় বসে তারাই দেশকে অস্থিতিশীল করে’ চার মাসে ‘অবশ্যই’ ৪৪২ প্রকল্প সমাপ্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সিএজি’র প্রতি আহ্বান ঢাকা-জলপাইগুড়ি যাত্রীবাহী ট্রেন উদ্বোধন করবেন হাসিনা-মোদি আরো টিকা কেনার টাকা প্রস্তুত রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মানুষকে খাদ্য সরবরাহ-সময়মতো ভ্যাকসিন দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

জান্নাতি যে দুই ব্যক্তিকে দেখে হাসবেন আল্লাহ

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

জান্নাতি দুইজন ব্যক্তিকে দেখে মহান আল্লাহ হাসবেন। কারণ, তাদের একজন অপর জনের খুনি। যে খুন হয়েছেন আর যে খুন করেছেন; তারা উভয়েই জান্নাতের মেহমান হওয়ার সৌভাগ্য লাভ করবেন। আর তাদের দেখেই মহান আল্লাহ হাসবেন। তারা কারা?

সময়ের ব্যবধানে হত্যাকারীর জন্যও জান্নাতের ফয়সালা দেবেন আল্লাহ! যদিও হত্যাকারীর প্রতি রয়েছে আল্লাহর অভিশাপ। আল্লাহ তাআলা কত মেহেরবান!

মানুষ বা মানবতার হত্যা জঘন্যতম অপরাধ। তারপরও রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহিস সালামের হাদিসে হত্যাকারীর জন্য জান্নাত পাওয়া কথা এবং তাদের দেখে আল্লাহ হাসবেন বলে বর্ণনা করেছেন হাদিসে-
হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, নিশ্চয় রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, আল্লাহ তাআলা এমন দুই ব্যক্তির প্রতি (তাকিয়ে) হাসবেন, যাদের একজন অপরজনকে হত্যা করবে এবং উভয়েই জান্নাতে যাবে। তাদের একজন আল্লাহর পথে লড়াই করে শহিদ হবে। তারপর আল্লাহ হত্যাকারীর তাওবা কবুল করবেন এবং সে ইসলাম গ্রহণ করে (ইসলামের জন্য) শাহাদাত লাভ করবে। (বুখারি ও মুসলিম)

উক্ত হাদিস থেকে বুঝা যায় যে, প্রথম ব্যক্তি ইসলামের জন্য প্রথমে শহিদ হবেন। আর দ্বিতীয় ব্যক্তি হলো ওই ব্যক্তি যিনি ইসলাম গ্রহণের আগে প্রথম ব্যক্তিকে শহিদ করেছেন। তারপর ইসলাম গ্রহণ করেছেন। আল্লাহর কাছে কৃত অপরাধের জন্য তাওবাহ করেছেন। আর ইসলাম গ্রহণের পর নিজের জীবন বিসর্জন দিয়েছেন। আল্লাহ তাআলা উভয় শহিদকে জান্নাত দান করবেন। আর তাদের দেখে হাসবেন।

আসুন নিজের অপরাধের জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করি। তাওবাহ করে গোনাহমুক্ত জীবন লাভ করি। জান্নাতে আল্লাহর মেহমান হই। আল্লাহ তাআলা কবুল করুন। আমিন।