• মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৭ ১৪২৭

  • || ১৮ রজব ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা

পাকিস্তানে বিপাকে ভুট্টো, যুদ্ধবন্দি প্রসঙ্গে ভারতের প্রেসনোট

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২১  

১৯৭৩ সালের জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহ এশিয়াজুড়ে অনেক কিছু ঘটছিল। একদিকে ভিয়েতনামের যুদ্ধবিরতি আরেকদিকে আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে অস্থির পাকিস্তান। একই সময় ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যুদ্ধবন্দিদের নিয়ে নানা আলোচনা। আর উপমহাদেশে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দলসহ আন্তর্জাতিক মহলের সফর ছিল অব্যাহত।

পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের সশস্ত্র অভ্যুত্থান শুরুর খবর আসে এই দিনে। বেলুচিস্তানের দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলে সেনাবাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে তখন লড়াই চলছে। বেলুচিস্তানের গভর্নর গাউস বক্স বেজেঞ্জো বেসামাল অবস্থায় তাড়াহুড়ো করে ডাকা এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই সশস্ত্র বিদ্রোহের কথা প্রকাশ করেন বলেন, বেলুচিস্তানের স্বার্থবাদীরা বিদ্রোহীদের উৎসাহিত করছে এবং জুলফিকার আলী ভুট্টোর মন্ত্রিসভার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল কাইয়ুম এই বিদ্রোহে সমর্থন জোগাচ্ছে।

বেলুচিস্তানের গভর্নর বলেন, বিদ্রোহীরা বেলুচিস্তান সরকারকে উৎখাত করার চেষ্টা করছে। বিদ্রোহী সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে গভর্নর বলেন, প্রতিক্রিয়াটা আমার সরকারের বিরুদ্ধে নয়। এই বিদ্রোহের জন্য বেলুচিস্তানে পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় শাসন জারি করা হবে কিনা প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, কেন্দ্র হস্তক্ষেপ করলে তা আমাদের পক্ষে হবে।

যুদ্ধবন্দিদের ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেবে কেবল বাংলাদেশ

ভারত সরকার এক প্রেসনোটের মাধ্যমে আবারও পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেয়, পাকিস্তানের যুদ্ধবন্দিদের স্বদেশ পাঠানোর ব্যাপারে বাংলাদেশের সম্মতি প্রয়োজন। ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনের এক প্রেসনোটে ভারতের বিদেশ সম্পর্ক বিষয়ক মন্ত্রী শরণ শিং ও পরিকল্পনামন্ত্রী ভি পি ধরের সঙ্গে দুজন পাকিস্তানি সাংবাদিকের সাক্ষাৎকারে প্রসঙ্গটি উঠে আসে এবং এর পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় মনোভাবের কথা আবারও জানানো হয়।

পাকিস্তানের মর্নিং নিউজ-এর সম্পাদকের সঙ্গে সাক্ষাৎকারের বিবরণ থেকে বোঝা যায়, পাকিস্তানি যুদ্ধবন্দিদের মুক্তির ব্যাপারে ভারতের বহু বিঘোষিত নীতির কোনও পরিবর্তন হয়নি। প্রেসনোটে বলা হয়, ভারত সিমলায় পরিষ্কার করে জানিয়ে দিয়েছে, পাকিস্তানি যুদ্ধবন্দিদের মুক্তিদান সম্পর্কে বাংলাদেশের সম্মতি প্রয়োজন এবং পাকিস্তান এটা মেনে নিয়েছিল বলে মনে হয়। যদিও পাকিস্তান মনে করেছিল তারা ‘সে সম্মতি পাবে’। পাকিস্তান সিমলায় আমাদের বুঝিয়ে ছিল যে যুদ্ধবন্দিদের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিন্তু আমরা পাকিস্তানকে বলেছিলাম এ সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের উপস্থিতি প্রয়োজন।

আওয়ামী লীগ মনোনয়ন প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ সমাপ্ত

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের প্রথম সাধারণ নির্বাচনের জন্য মনোনয়ন প্রার্থীদের আবেদনপত্র বাছাইয়ের কাজ সমাপ্ত করে। এই দিনে ঢাকা বিভাগের প্রার্থীদের মনোনয়ন বাছাইয়ের মাধ্যমে মোট তিনশ আসনের জন্য দলের প্রার্থীদের মনোনয়ন বাছাই কাজ সমাপ্ত হয়। নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে পত্রিকা জানায়, ৩১ জানুয়ারি বা পহেলা ফেব্রুয়ারি দলের মনোনীত প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে। ঢাকা বিভাগের সাক্ষাৎকার গ্রহণ পর্ব সমাপ্ত করতে উভয় অধিবেশনে দলীয় এবং বোর্ডের প্রধান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সভাপতিত্ব করেন।

নেপাল-বাংলাদেশ সমঝোতা

বাণিজ্য সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা প্রদানের বিষয়ে নীতিগতভাবে দুদেশের মধ্যে সমঝোতা প্রতিষ্ঠা হয়। নেপালি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্ঞানেন্দ্র বাহাদুর কার্কি বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, তার এই সফর অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে এবং পারস্পরিক সমঝোতাকে আরও প্রসারিত করবে। এক প্রশ্নের জবাবে নেপালি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেহেতু ইতোমধ্যে নেপাল ও ভারত সমঝোতায় উপনীত হয়েছে সেহেতু ভারতীয় ভূমির ওপর দিয়ে নেপালের পণ্য আমদানি রফতানির ব্যাপারে কোনও সমস্যা দেখা দেবে না। আটক বাঙালিদের প্রসঙ্গে সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মানবতার খাতিরে পাকিস্তানে আটক নিরীহ বাঙালিদের ছেড়ে দেওয়া উচিত।