• সোমবার   ১২ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ২৮ ১৪২৭

  • || ২৯ শা'বান ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ স্বীকৃতি পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাবর্তন জলবায়ু কূটনীতিতে নতুন গতির সঞ্চার হবে প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ সরকার গঠিত হয় একাত্তরের ১০ এপ্রিল ডি-৮ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে হবে:প্রধানমন্ত্রী করোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ডি-৮ এর প্রতি প্রধানমন্ত্রী আহ্বান আজ বৈঠকে বসছেন ডি-৮ শীর্ষ নেতারা মানুষ বাঁচাতে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী টিকাদানে বিশ্বের শীর্ষ ২০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী বাণিজ্য সম্প্রসারণে মার্কিন সরকারের সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী

পাতাল রেল নির্মাণে নকশার জন্য চুক্তি, বাজেট ৪০৮ কোটি

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৯ মার্চ ২০২১  

গাবতলী থেকে আফতাবনগর হয়ে বালিরপাড়া পর্যন্ত পাতাল রেল নির্মাণের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও নকশা প্রস্তুতের জন্য চুক্তি করেছে সরকার। ১৭ দশমিক চার কিলোমিটারের এই পথে থাকবে ১৬টি স্টেশন। মাটির ৯তলা নিচে দিয়ে চলা এই পাতাল রেল ২০৩০ সালে উদ্বোধন হবে। যাতে প্রতিদিন ৯ লাখ মানুষ ঢাকার একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে চলাচল করতে পারবেন।

রাজধানীর পরিবহন সেবা আধুনিক করতে যুক্ত করা হয় মেট্রোরেল প্রকল্প, যা এখন রাজধানীবাসীর কাছে দৃশ্যমান। এবার এই প্রকল্পের আওতায় ঢাকা মেট্রোরেল ৫ দক্ষিণের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে।

প্রায় সাড়ে ১৭ কিলোমিটারের এই মেট্রোরেল পথ শুরু হবে গাবতলী থেকে। যার মধ্যে গাবতলী থেকে আফতাবনগর পর্যন্ত ১২ দশমিক ৮০ কিলোমিটার মাটির নিচ দিয়ে যাবে এবং আফতাবনগর সেন্টার থেকে বালিরপাড়া পর্যন্ত ৪ দশমিক ৬০ কিলোমিটার পথ হবে উড়াল।

গাবতলী থেকে টেকনিক্যাল মোড়, কল্যাণপুর, শ্যামলী হয়ে রাসেল স্কয়ার, কারওয়ান বাজার, হাতিরঝিল দিয়ে তেজগাঁও, নিকেতন এরপর আফতাবনগর থেকে দাশেরকান্দি। শেষ স্টেশন বালিরপাড়া। বর্তমান সড়ক পথের প্রায় ৯ তলা সমান গভীর দিয়ে যাবে এই ট্রেন।

সোমবার (২৯ মার্চ) এই প্রকল্পের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও নকশা প্রস্তুতের জন্য ফ্রান্সের একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করে ঢাকা মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। এই চুক্তির আওতায় ২০২৩ সালের মধ্যে নতুন পথের নকশা তৈরি ও টেন্ডার সহায়তার কাজ করা হবে। যার বাজেট ধরা হয়েছে ৪০৮ আট কোটি টাকা।

ঢাকা মেট্রোরেলের প্রকল্প পরিচালক এম এ এন সিদ্দীক বলেন, ঢাকা মহানগরী যে জায়গায় ডেভেলপমেন্ট হয়ে গেছে; সেখানে আন্ডারগ্রাউন্ডে যাবো। আর যে জায়গাগুলো নতুনভাবে হচ্ছে সেখানে এলিভেটেড এক্সপেস নির্মাণ হবে সাড়ে ১৭ কিলোমিটার এই রেলপথ নির্মানের জন্য প্রাথমিকভাবে বাজেট ধরা হয়েছে ৪০ হাজার কোটি টাকা।