• রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৬ ১৪২৭

  • || ১৭ রজব ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা

পাহাড় দখলের মাধ্যমে নুরুর অপরাধ সাম্রাজ্যের বিস্তৃতি

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২১  

চট্টগ্রামের আলোচিত সন্ত্রাসী ২৪ মামলার আসামি নূরে আলম নুরকে সহযোগীসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নগরীর আকবরশাহ থানার তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও এলাকার ত্রাস সে। তার আছে বিশাল বাহিনী। তার বিরুদ্ধে সরকারি পাহাড় কেটে প্লট তৈরি করে বিক্রি, অপহরণ, চাঁদাবাজি, পুলিশের ওপর হামলা, মাদকের আসর ও মাদক ব্যবসা, জুয়ার আসর বসানো, লেকের মাছ লুটসহ বিভিন্ন অপরাধে ২৪টি মামলা রয়েছে।

নগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) রাতে তাকে সহযোগীসহ নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার শান্তির হাট থেকে আটক করেছে আকবরশাহ থানা ও নগর গোয়েন্দা পুলিশের যৌথ টিম। সম্প্রতি পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে অভিযানে গেলে দুই দফায় তার ১৩ সহযোগী আটক হয় এবং প্রথম দফায় তার সহযোগীরা পুলিশের ওপর হামলা করে।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মৃত ধনা মিয়ার ছেলে নুরুর জীবন-যাপন অনেকটা বলিউডের ভিলেনের মতো। গুলি ও এলোপাথারি কিরিচ চালানোয় পারদর্শী নুরু। আছে তার প্রশিক্ষিত বাহিনীও।

নুরু নগরীর জনবহুল আকবরশাহ থানার এক নম্বর ঝিল এলাকার পাহাড়ে বাস করতেন। তার আস্তানার চারপাশে ২৪ ঘণ্টা পালাক্রমে পাহারা থাকে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কিংবা অপরিচিত কেউ এলাকায় গেলে তার বাহিনীর সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়।

সর্বশেষ ২০১৪ সালের ৬ জুলাই বন্দুক, এলজি ও বিপুল গুলিসহ গ্রেফতার করে নুরুকে ৭ জুলাই আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। এরপর জামিনে বেরিয়ে এসে পুরোনা পথেই হাঁটে এই সন্ত্রাসী।

বর্তমানে তার মামলার সংখ্যা দুই ডজন। আকবরশাহ এলাকার পূর্ব ফিরোজশাহ ১ নম্বর ঝিলের পাহাড়ে নুরু বসবাস করলেও পার্শ্ববর্তী বেলতলি ঘোনা, নাছিয়া ঘোনা এলাকা দাবড়ে বেড়াচ্ছে নুরুর বাহিনী।

অবৈধভাবে পাহাড় কেটে বাসস্থান করায় নুরুর আস্তানায় যাওয়া-আসার রাস্তায় সরকারি উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। প্রায় তিন কিলোমিটার মেঠোপথ মাড়িয়ে তার আস্তানায় যেতে হয়। দীর্ঘ পথ মাড়িয়ে যাওয়া আসার ঝুঁকি একাধিকবার নিয়েও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সফল হয়নি। তবে এবার পুলিশ এক টানা অভিযান চালিয়ে কব্জায় আনে নুরুকে।

২৬ ডিসেম্বর পুলিশ ১ নম্বর ঝিলে ব্লক রেইড দেওয়ার সময় নুরু বাহিনীর হামলার শিকার হয়। এসময় আযম নামে তার এক সহযোগীকে আটক করা হয়। এরপর আরেক অভিযানে তার ১২ সহযোগী আটক হয়।