বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

শরীয়তপুর বার্তা
৪৮

বাসায় গ্যাস সিলিন্ডার রয়েছে? এসব কাজ একদম করবেন না!

প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর ২০১৯  

কদিন পরপরই ঘটছে সিলিন্ডারজনিত দুর্ঘটনা। অসাবধানতা এসব দুর্ঘটনার মূল কারণ। আপনার ঘরে কি গ্যাস সিলিন্ডার রয়েছে? যদি উত্তর হ্যাঁ হয় তবে অবশ্যই কিছু কাজ থেকে বিরত থাকা উচিত। সেগুলো কী? চলুন জেনে নেওয়া যাক- 

গ্যাস সিলিন্ডারের সঙ্গে সংযুক্ত রাবারের পাইপটিতে যেন অবশ্যই ‘বিএসটিআই’ এর ছাপ থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। সেসঙ্গে পাইপটির দৈর্ঘ্য যেন এক থেকে দেড় ফুটের বেশি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। 

সিলিন্ডারের রেগুলেটরের নজলটি যেন অবশ্যই পাইপ দিয়ে খুব ভালো করে কভার করা থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। গরম বার্নারের সঙ্গে কোনোভাবেই গ্যাসের পাইপ যেন লেগে না থাকে সেদিকেও নজর দেওয়া জরুরি। 

সিলিন্ডারের পাইপটি পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে ভেজা কাপড় ব্যবহার করুন। কিন্তু ভুলেও এ কাজে সাবান পানি ব্যবহার করবেন না।২ বছর অন্তর অন্তর পাইপ বদলানো জরুরি। 

পাইপটিকে কখনো কাপড় বা প্লাস্টিক জাতীয় জিনিস দিয়ে মুড়ে রাখবেন না। কিছু দিয়ে পাইপ মুড়ে রাখলে তা ফেটে গেলে কিংবা লিক হলে ধরা পড়বে না। 

কখনো যদি বুঝতে পারেন যে গ্যাস লিক হচ্ছে তাহলে ঘরের ইলেক্ট্রিক অ্যাপ্লায়েন্স বন্ধ রাখুন। ওভেন, রেগুলেটর ইত্যাদি বন্ধ করে ঘরের দরজা জানালা খুলে দিন। 

গ্যাস লিক করার পর কিছুক্ষণের মধ্যে যদি গন্ধ আসা বন্ধ না হয় তবে গ্যাস ডিস্ট্রিবিউটরের অফিস বা হেল্পলাইন নম্বরে ফোন করুন। সিলিন্ডার থেকে রেগুলেটর আলাদা করে মুখে সেফটি ক্যাপ পরিয়ে দিন। 

খালি সিলিন্ডার থেকে রেগুলেটর খোলার সময় খেয়াল রাখুন আশেপাশে যেন মোমবাতি বা আগুন জাতীয় কোনো জিনিস না জ্বলে। 

সিলিন্ডারের ওপর কখনোই কাপড়, বাসন, তৈজস কিছু রাখবেন না। এতে দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থাকে। 

নির্দিষ্ট সময় পরপর অবশ্যই সিলিন্ডারে গ্যাসে মাত্রা, পাইপের অবস্থা পরীক্ষা করবেন। তাহলে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটবে না।