• বৃহস্পতিবার   ২৯ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৪ ১৪২৭

  • || ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা
১০৮

বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত হায়দরাবাদ, স্রোতে ভেসে যাচ্ছে মানুষ-গাড়ি

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১৫ অক্টোবর ২০২০  

তিনদিনের টানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের হায়দরাবাদ শহর। বৃষ্টি ও বন্যার পানিতে নিমজ্জিত রাস্তাঘাট। এ পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা বাড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। এখন পর্যন্ত ১৯১.৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে হায়দরাবাদে।

হায়দরাবাদের ফলকনুমার বারকাস এলাকার পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। সেখানে স্রোত এতই বেশি যে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা গাড়িও টেনে নিয়ে যাচ্ছে। টেনে নিচ্ছে মানুষকেও।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা বেশকিছু ছবি ও ভিডিতে দেখা যাচ্ছে, রাস্তার দু’পাশ ছাপিয়ে পানির স্রোত ঢুকছে বাড়িঘরে। ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে দোকানপাট, গাড়ি। তীব্র স্রোতে ভেসে যাচ্ছে মানুষও।

হায়দরাবাদের বারকাস এলাকার পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বন্যার পানি ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে একজনকে। হাত-পা ছুড়ে বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টা করছেন তিনি। চোখের সামনে একজন মানুষকে এভাবে ভেসে যেতে দেখে চিৎকার করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। উদ্ধারের আপ্রাণ চেষ্টা করছেন দু’জন। একটা টায়ার ছুড়ে দিতেও দেখা যায়। কিন্তু স্রোত এতটাই বেশি যে, টায়ারও ভেসে চলে যায় স্রোতের টানে। এছাড়া আরও কয়েকটি ভিডিওতে তীব্র স্রোতে ট্রাক ও প্রাইভেটকার ভেসে যেতে দেখা যায়।

আবহাওয়া দফতর বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২০ সেন্টিমিটার বৃষ্টি হয়েছে হায়দরাবাদে। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের ফলে গভীর ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়েছে। এই ঝড়ের কারণেই প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়েছে তেলেঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আরও কয়েকদিন বৃষ্টিতে ভাসবে তেলেঙ্গানা। এর পরে ঘূর্ণিঝড়টি ধীরে ধীরে মহারাষ্ট্র ও কর্নাটকের দিকে সরে যাবে।

মঙ্গলবার রাতেই হায়দরাবাদের বান্দলাগুডা এলাকার একটি বাড়ির দেয়াল ভেঙে পড়ে মৃত্যু হয়েছে তিন শিশুসহ ৯ জনের। মৃতদের মধ্যে ১৯ দিনের শিশুও রয়েছে। গত ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টি ও বন্যার কারণে ১২ জন প্রাণ হারিয়েছেন। মৃতের সংখ্যা বাড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে তেলেঙ্গানার মুখ্যসচিব সোমেশ কুমার জানিয়েছেন, যুদ্ধকালীন তৎপরতায় উদ্ধারকাজ শুরু করেছে রাজ্য ও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল। রাজ্যের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে দুদিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছেন তিনি।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বিগত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে এ বছর অক্টোবরেই। এখন পর্যন্ত ১৯১.৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে হায়দরাবাদে।

আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর