• মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪২৮

  • || ০৫ জ্বিলকদ ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা

ভেদরগঞ্জের পদ্মা নদীতে জাটকা ধরায় ১১ জেলের দন্ড

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০২১  

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলা মৎস্য অফিস ও সখিপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় জাটকা সংরক্ষণের জন্য অভিযান চালিয়ে ২৩ মার্চ দুপুরে ভেদরগঞ্জের পদ্মা নদী থেকে ১১ জেলেকে আটক করে। এসময় ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ১শ কেজি জাটকা জব্দ করছে।

আটককৃত জেলেরা হলো, নড়িয়া উপজেলার চরআত্রা গ্রামের হাসেম খাঁর ছেলে মোঃ হযরত আলী খাঁ(১৮),কালা মিয়া শেখের ছেলে আলী আজগর (২৮), মোসলেম উদ্দিন মালতের ছেলে শাহজালাল (১৬),একই উপজেলার নওপাড়া গ্রামের ইব্রাহিম হাওলাদারের ছেলে নজরুল হাওলাদার(১৮), ভেদরগঞ্জ উপজেলার দুলারচর গ্রামের নাছির সরদারের ছেলে তানজিল সরদার (১৫),একই উপজেলার দক্ষিণ তারাবুনিয়া ইউনিয়নের আফা মোল্যারকান্দি গ্রামের  শাহজালাল বকাউলের ছেলে সুমন বকাউল (১৩),দুলারচর গ্রামের জসিম হাওলাদারের ছেলে খোকন হাওলাদার (১৮),একই গ্রামের ইব্রাহিম হাওলাদারের ছেলে নজরুল ইসলাম হাওলাদার (১৮), সখিপুরের ইয়াকুব মুন্সী কান্দি গ্রামের সহিদ খাঁর ছেলে সিরাজ খাঁ (২৫), দুলারচর গ্রামের আবুল মান্দির ছেলে  সাগর(১৭) ও একই গ্রামের ইমাম হোসেন চৌধুরীর ছেলে রাসেল চৌধুরী (১৭)।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, ২৩ মার্চ মঙ্গলবার ইলিশের পঞ্চম অভয়াশ্রমের ভেদরগঞ্জ এর পদ্মা নদীতে অভিযান চালিয়ে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জাটকা ধরার দায়ে ১১ জেলেকে আটক, করি। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ১শ কেজি জাটকা ইলিশ জব্দ করা হয়। আটককৃত জাটকা ইলিশ বিভিন্ন এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে, কারেন্ট জালগুলো পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর আল নাসীফ এর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে প্রত্যেক জেলেকে ৫ হাজার করে মোট ৬৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর আল নাসীফ বলেন, জাটকা সংরক্ষণে ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন মৎস্য বিভাগ ও পুলিশ বিভাগ কঠড় অবস্থানে রয়েছে। নদীতে নামা মাত্রই তাদের ধরা হচ্ছে। দোষী প্রমানিত হওয়ায় মৎস্য সংরক্ষণ আইনে আটককৃতদের অর্থদন্ড প্রদান করা হয়।