• শুক্রবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৮

  • || ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

শরীয়তপুরে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস উদযাপন

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০২১  

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ মুজিববর্ষের প্রতিশ্রুতি জোরদার করতে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস ২০২১ উদযাপন করা হয়েছে। ভূমিকম্প ও অগ্নিকান্ডে করণীয় বিষয়ে জেলা প্রশাসন শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল চত্বরে ১০ মার্চ বুধবার মহড়া আয়োজন করেন। শরীয়তপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক সেলিম মিয়ার নেতৃত্বে মহড়ায় অংশগ্রহণ করেন একদল দক্ষ ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীগন।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন থেকে জানা গেছে, ২০০৯ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে অগ্নি দুর্ঘটনা ঘটেছে ৮৫ হাজারেরও বেশি। এতে ১৬ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। ৭২ শতাংশ অগ্নিকান্ড ঘটে বৈদ্যতিক  গোলযোগ, চুলা থেকে লাগা আগুন এবং সিগারেটের আগুন থেকে। এই অনাকাঙ্খিত অগ্নিকান্ড থেকে রক্ষার উপায় সকলকে জানতে হবে।

প্রতিষ্ঠানের উপসহকারী পরিচালক মোঃ সেলিম মিয়া জানায়, আবাসিক এলাকায় রান্না ঘরে চুলা জ্বালিয়ে রাখলে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটবেই। চুলার আশপাশে শুকনো পদার্থ, কাগজ, কাপড় বা অন্যান্য দাহ্য পদার্থ রাখা যাবে না। শিশুদের হাতের নাগালে গ্যাসের চুলা ও ম্যাচের কাঠি রাখাও অনিরাপদ। মশার কয়েল ব্যবহারেও সচেতন হতে হবে। সিগারেটের আগুন যত্রতত্র ফেললেও অগ্নিকান্ড ঘটতে পারে।  ছোটখাট এই বিষয়ে আমাদের সচেতন হতে হবে। তাছাড়া চুলার উপর গরম তেলের কড়াইতে আগুন জ্বলে উঠলে ঢাকনার ব্যবহার করা যাবে না। দাহ্য পদার্থে আগুন লাগলে পানির ব্যবহান না করে বালু, বস্তা বা কাথার মতো ভারি কোন জিনিস দিয়ে আগুন ঢেকে দিতে হবে। প্রত্যেক বাড়িতে বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ফায়ার এক্সটিংগুইশার রাখা জরুরী। এইটি যাদের ক্রয়ের ক্ষমতার বাইরে তারা পানি ভর্তি বালতি ও বালি রাখবেন। বিদ্যুত থেকে আগুন লাগলে অবশ্যই ‘মেইন সুইচ’ বন্ধ করতে হবে। আর গ্যাসের আগুনের ক্ষেত্রে গ্যাসের রাইজার বন্ধ করে সরবরাহ বিচ্ছিন্ন করে দিতে হবে। আমরা সচেতন হলে অগ্নিকান্ডের মতো দুর্ঘনা এড়িয়ে চলা সম্ভব।

এই সময় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগন, শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের ডাক্তার নার্স, ফায়ার সার্ভিসের অভিজ্ঞ কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।