• বুধবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

শরীয়তপুরের ৫১ কৃতি শিক্ষার্থী পেল সম্মাননা স্মারক

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০২১  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: 

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান  ৫১ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে 'আমিই বাংলাদেশ' শীর্ষক সম্মাননা প্রদান করেছেন।

আজ বুধবার (২২ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল চত্তরে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  জেলা প্রশাসক (ডিসি) পারভেজ হাসান। ডিসি বলেন, আমরা বাঙালী জাতি বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছি। একই সাথে মুজিব শতবর্ষের শেষ প্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছি। এমন একটি মাহিন্দ্রক্ষনে 'আমি বাংলাদেশ' নামক যে উদ্যোগ, সে উদ্যোগে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি বাঙ্গালী জাতির স্বপ্ন দ্রষ্টা  সর্বকালে সর্বশ্রেষ্ট বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। একই সাথে ১৯৭১ সালের ১৫ আগষ্ট জাতির পিতা পরিবারের যারা শহীদ হয়েছেন তাদের শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি। 

তিনি বলেন, আজকে যে অনুষ্ঠানটি আমরা এখানে আয়োজন করেছি  গত এক বছর ধরে জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর এরকম আমরা তিনটি অনুষ্ঠান করেছি। এটি জেলা প্রশাসক হিসেবে সরকারের সঙ্গে আমার একটি কমিটম্যান্ট।  আমি উদ্যোগটি নিয়েছি একারণে যে রাষ্ট্র নায়কের অধিনে আমরা কাজ করছি তিনি ভিশন নিয়ে কাজ করেন। তিনি আগামী দিনের স্বপ্ন আজ দেখানোর সক্ষমতা রাখেন। সেই স্বপ্নের পিছনে আপামর জনগনকে নিয়ে ছুটে চলার সক্ষমতাও রাখেন। ২০২১ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশ আমরা গড়েছি। ২০৩০ সালে এসডিজির সকল লক্ষমাত্রা অর্জনের জন্য আমরা ছুটে চলেছি। ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্নে আমরা বিভোর হয়েছি। 

কৃতি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ডিসি বলেন, সামনে যারা বসে আছো যারা ২০৩০ সালে কিংবা ২০৪১ সালে এই রাষ্ট্রকে নেতৃত্ব দেবে, এই মঞ্চে দাঁড়িয়ে কথা বলবে। তাদের কাছে আমি পৌঁছাতে চাই, জানাতে চাই- যে স্বপ্নটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেখছেন সেই স্বপ্নের একটি অংশ তুমি এবং সেখানে তোমার পরিবারের সাথে দায়িত্ব পালনের প্রশ্নটি জড়িত। সমাজের প্রতি, একই সাতে রাষ্ট্রের জন্য তোমার দায়িত্ব পালনের প্রশ্নটি জড়িত। দায়িত্ব পালনে কর্ম প্রক্রিয়ায় তুমি যে স্বপ্নগুলো দেখছো, সেই স্বপ্নগুলোর পাশে সরকারি একজন কর্মচারি হিসেবে জেলা প্রশাসক হিসেবে তোমাদের পাশে দাঁড়াতে চাই। এই জেলায় যারা শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়াক্ষেত্রে যারা উজ্জ্বল নমুনার স্বাক্ষর রেখেছে। বিভিন্ন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছে, শাণিত শরীয়তপুরের সঙ্গে জুড়ে দিতে সক্ষম হয়েছে। তাদেরকে এক সঙ্গে জড়ো করে ছোট্ট পরিসরে এই আয়োজন।

এসময় পুলিশ সুপার এস.এম আশরাফুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক তৌসিফ আহমেদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনদীপ ঘরাই, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকার্তা আবুল কালাম আজাদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, এনডিসি মো. পারভেজ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। 

জানা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, হজরত শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনাল, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজ, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (অনুর্ধব-১৭) অধিনায়ক, শরীয়তপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পী ও অদম্য সংগ্রামী রুপা পেল কৃতি সম্মাননা।

সম্মাননা পাওয়া রুপা রানী দে বলেন, এ রকম সম্মাননা পাওয়া সত্যিই আনন্দের এবং সম্মানের। এতে আমার পড়ালেখা ও আগামীতে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জোগাবে। আমি জেলা প্রশাসক স্যারের জন্য আশীর্বাদ করি।