• রোববার ২১ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৬

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

শরীয়তপুরে আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস পালিত

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০২৩  

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ “সুরক্ষিত  শ্রবণ,সুরক্ষিত জীবন" এ প্রতিপাদ্য নিয়ে শরীয়তপুরে আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস পালিত হয়েছে।
প্রতিবছর এপ্রিল মাসের শেষ বুধবার পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস পালন করা হয়। সে হিসাবে (২৬ এপ্রিল) বুধবার  জেলা পরিবেশ অধিদপ্তর এর সহযোগিতায় শরীয়তপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নানান আয়োজনে আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস পালিত হয়েছে।
এর পূর্বে জেলাপ্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবার একই স্থানে এসে শেষ হয়।
 এ উপলক্ষে শরীয়তপুর জেলাপ্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক(সার্বিক) মুহাম্মাদ তালুত এর সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন, ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন.পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক মোঃ রাশেল নোমান,সহকারি কমিশনার বাসির সাত্তার, জেলা পাসপোর্ট এর সহকারি পরিচালক নাজমূল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া অফিসার সমীর বাইন।

সভায় বক্তারা বলেন,  আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস শব্দদূষণে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বিষয়ে বিশ্বমানবতাকে সচেতন করার জন্য একটি আন্তর্জাতিক ক্যাম্পেইন দিবস। আন্তর্জাতিকভাবে ১৯৯৬ সাল থেকে এ দিবসটি উদযাপন শুরু হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ দিবসটি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে পালন করা হয়। আমাদের দেশে ২০০৩ সাল থেকে এ দিবসটি পালিত হয়ে আসছে।
সভাপতির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক(সার্বিক) মুহাম্মাদ তালুত বলেন, শব্দদূষণের ফলে মানুষের বহুমাত্রিক স্বাস্থ্য ঝুঁকিসমূহ হলো- মাথাব্যাথা, অনিদ্রা, কানে কম শোনা এবং আংশিক বা পুরোপুরি বধিরতা, মানসিক চাপ, হৃদরোগ ও উচ্চ রক্তচাপ, ক্ষুধামান্দ্য, গ্যাস্ট্রিক এবং বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুর জন্ম হওয়া। জনস্বাস্থ্য ও সাধারণ মানুষের জীবনমানের ওপর শব্দের ক্ষতিকারক প্রভাবগুলো সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানো ও শব্দদূষণের বিরুদ্ধে কার্যক্রম গ্রহণে কমিউনিটিকে উদ্বুদ্ধ করাই হলো এই দিবসের মূল উদ্দেশ্য। বিশেষজ্ঞদের মতে শব্দদূষণ বিষয়টি বিশ্বব্যাপী একটি অন্যতম জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সাম্প্রতিক সময় সরকার শব্দদূষণ নিযন্ত্রণের জন্য পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরির্তন মন্ত্রণালয়ের আওতায় পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালনায় ‘শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত ও অংশিদারিত্বমূলক প্রকল্প’ গ্রহণ করেছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের সুযোগ্য মহাপরিচালকের নির্দেশনায় এ প্রকল্পের মাধ্যমে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি করে মানুষকে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অনুপ্রাণিত করার কর্যক্রম চলছে। বিশেষজ্ঞদের মতে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে জনগণকে উৎসাহিত করার পাশাপাশি, শব্দদূষণ রোধে একটি সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা প্রয়োজন। মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত আইনের যথাযথ বাস্তবায়ন প্রয়োজন।