• মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা

ড. ইউনুসসহ পদ্মা সেতুর বিরোধিতাকারীদের বিচার চান মৎস্যমন্ত্রী

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৯ জুন ২০২২  

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, পদ্মা সেতু নির্মাণে বিরোধিতা করে দেশের উন্নয়নে যারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে বিরোধিতা করেছে, তাদের বিচার হতে হবে। ড. ইউনুস ও তার সঙ্গে যেসব সাঙ্গপাঙ্গ আছে, তাদেরও বিচার করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, আজকে যদি তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়, তাহলে ভবিষ্যতে অনেকে মনে করবে ঘটনা ঘটার পর তো কিছুই হয় না। আমি মনে করি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেশের উন্নয়ন অথবা অসত্য তথ্য যারা সরবরাহ করেছে, আমাদের প্রচলিত আইন আছে, দণ্ডবিধি, বিশেষ ক্ষমতা আইনসহ অন্যান্য আইন আছে, সেই আইনে আমার দৃষ্টিতে তারা অপরাধী। আমি একজন সিনিয়র আইনজীবী, দীর্ঘ ৩৪ বছরের ল-প্রফেশন, আমার দৃষ্টিতে তারা অপরাধ করেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন আমার কোনো আভিযোগ নেই, কিন্তু অপরাধীরা কখনো পরিত্রাণ পেতে পারে না। প্রত্যেকের বিচার করতে হবে।

বুধবার (২৯ জুন) দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে এক গোল টেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 'পদ্মা সেতু: সম্প্রীতির পথে সাফল্যের অগ্রযাত্রা' শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠকের আয়োজন করে সম্প্রীতি বাংলাদেশ।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশ সম্প্রীতির বাংলাদেশ। এর একটি ধারাবাহিকতা আছে আমাদের দেশে। একসময় কট্টর ধর্মাবলম্বীররা ভীষণ রক্ষণশীল ছিলেন। সেই জায়গা থেকে বেরিয়ে বঙ্গবন্ধু সবাইকে ভাষাভিত্তিক ঐক্যের জায়গায় নিয়ে আসতে চেষ্টা করলেন এবং সফল হলেন। আমরা সবাই বাঙালি হলাম। এরপরও সাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ জিয়াউর রহমান আইনানুগভাবে চালু করেছিলেন। এরপর ধারাবিহকতা বজায় রেখেছিলেন এরশাদ। সেখান থেকে বাংলাদেশকে বের করে আনার চেষ্টা করেছেন শেখ হাসিনা। এজন্য তাকে ২১ বার হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। পাকিস্তানিরা চলে গেছে ঠিকই, কিন্তু তাদের প্রেতাত্মারা এখনো এদেশে রয়ে গেছে।

বৈঠকে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, পদ্মা সেতু আমাদের আর্থ-সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীযূস বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সদস্য সচিব অধ্যাপক ডা. আল মাহতাব স্বপ্নীল। এসময় অন্যান্য সুধিজনরাও উপস্থিত ছিলেন।