• রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

শরীয়তপুর বার্তা

গৃহকর্মী কিশোরীকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার কনটেন্ট ক্রিয়েটর ইসমাইল

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০২৪  

ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের আলোচিত কনটেন্ট ক্রিয়েটর ইসমাইল হোসেন (৩৫)। বুধবার (১০ জুলাই) ওই ভিক্টিম কিশোরীর মা বাদী হয়ে ইসমাইলকে আসামি করে হালুয়াঘাট থানায় ধর্ষণ মামলা করেন।

এর আগে মঙ্গলবার (৯ জুলাই) দুপুর ২টার দিকে হালুয়াঘাট থানায় আসেন ইসমাইল হোসেন। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আটক করে পুলিশ।

আলোচিত ইসমাইল হোসেন হালুয়াঘাট উপজেলার কালিয়ানীকান্দা গ্রামের বাসিন্দা মো. সুরুজ আলীর ছেলে। তার দুইটি সন্তান রয়েছে।

হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুবুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার নথির বরাত দিয়ে ওসি বলেন, ইসমাইল হোসেন ও ওই কিশোরী পাশাপাশি গ্রামে বসবাস করেন। ভিক্টিম কিশোরীর মা অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাতেন। কিশোরী নিজ বাড়ির কাজ করতেন। ইসমাইল হোসেন প্রায়ই ভিক্টিম কিশোরীর বাড়িতে আসা যাওয়া করতেন। ভিক্টিম কিশোরীর মা বাড়িতে না থাকার সুবাদে ইসমাইল প্রায়ই কু-প্রস্তাব দিতেন এবং বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করতেন।

এমতাবস্থায় ভিক্টিম কিশোরীকে ইসমাইল হোসেন বাসার কাজ করানোর জন্য মাসিক বেতনে তাদের বাড়িতে নিয়ে যান। নিজ বাড়িতে কাজ করার সুযোগে বিয়ের প্রলোভনে ৫ থেকে ৬ মাস যাবত তাকে ধর্ষণ করে আসছেন ইসমাইল।

সম্প্রতি ওই কিশোরী ইসমাইলকে বিয়ে করার জন্য চাপ দেয়। এতে ইসমাইল ক্ষিপ্ত হয়ে খুন করার হুমকি দিয়ে কিশোরীকে নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। সর্বশেষ গত ৬ জুলাই রাত ৮টার দিকে কিশোরীর মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে ইসমাইল তাকে ধর্ষণ করেন। এ সময় ভিক্টিম কিশোরী বিয়ে করার কথা বলে। কিন্তু ইসমাইল বিয়ে করবে না বলে তাদের বাড়ি থেকে চলে আসেন।

পরে কিশোরীর মা বাড়িতে এলে ইসমাইলের বিষয়ে বিস্তারিত বলেন। বিষয়টি জানতে পেরে ওই কিশোরীর মা থানায় মামলা দায়ের করেন। ওসি মো. মাহবুবুল হক বলেন, কিশোরীর মায়ের করা মামলায় ইসমাইলকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।