• রোববার ২১ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৬

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

সিসিকের প্রধান প্রকৌশলীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২৩  

সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) নির্মাণাধীন ভবন থেকে লোহার পাইপ পড়ে সেনাবাহিনীর ল্যান্স কর্পোরাল মো. দেলোয়ার হোসেন নিহত হওয়ার ঘটনায় সিসিকের প্রধান প্রকৌশলীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে শনিবার (৩ জুন) রাতে সিলেট কোতোয়ালি থানায় এ মামলা দায়ের করেন সেনানিবাসের ৫০ ফিল্ড রেজিমেন্টের সিনিয়র জেসিও আব্দুল মান্নান।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, শনিবার রাতে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে অবহেলাজনিত কারণে কোতোয়ালি থানায় এ মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় পাঁচজনের নামোল্লেখ করে আরও দুজনকে আসামি করা হয়েছে।

আসামিরা হলেন, সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবর, জামাল অ্যান্ড কোং–এর সাইড ইঞ্জিনিয়ার আবদুর রাজ্জাক, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জামাল অ্যান্ড কোং–এর মালিক মো. জামাল উদ্দিন, ক্রেনচালক মো. সাদেক। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক ও ঠিকাদারকে আসামি করা হয়েছে।

এর আগে শনিবার বিকেল তিনটার দিকে বন্দরবাজার এলাকার সিটি সুপার মার্কেটের নিচ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় সিটি করপোরেশনের নির্মানাধীন ভবন থেকে লোহার পাইপ পড়ে সিলেট সেনানিবাসের ৫০ ফিল্ট রেজিমেন্ট আর্টিলারীতে কর্মরত ল্যান্স কর্পোরাল মো. দেলোয়ার হোসেন আহত হন। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। দেলোয়ার হোসেনের বাড়ি মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার জগিরগোফার রায়পুর গ্রামে।

অন্যদিকে, এ ঘটনার পরপরই সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী প্রধান প্রকৌশলীকে আহ্বায়ক করে সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। তবে, মামলা রুজুর পর তদন্ত কমিটি পুনর্গঠন করা হয়েছে।

পুনর্গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক হলেন সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্মসচিব) মোহাম্মদ বদরুল হক, সদস্য সিসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা (নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট) মো. মতিউর রহমান খান, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেটের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. জয়নাল ইসলাম চৌধুরী, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল হাকিম, গণপূর্ত অধিদপ্তর সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী ‍রিপন কুমার রায়, সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) রুহুল আলম ও সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল) রজি উদ্দিন খান।