• শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ২ ১৪২৮

  • || ০৯ সফর ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

অগ্রগতি ৬৭.৬৩ শতাংশ, দৃশ্যমান সাড়ে ১৭ কি.মি রেল ট্র্যাক

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১ জুলাই ২০২১  

বৈশ্বিক মহামারি পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেলের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে। মেট্রোরেল প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি হয়েছে ৬৭ দশমিক ৬৩ শতাংশ। ইতোমধেই দৃশ্যমান হয়েছে সাদে ২৭ কিলোমিটার রেল ট্র্যাকের কাজ।

এছাড়া এর প্রথম অংশ উত্তরা তৃতীয় ফেইজ থেকে আগারগাঁও এর অগ্রগতি ৮৭ দশমিক ৮০ শতাংশ এবং আগারগাঁও থেকে মতিঝিলের অগ্রগতি ৬৫ দশমিক ৪৮ শতাংশ। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুসরণে মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার বর্ধিত করার জন্য বর্তমানে ডিটেইল ডিজাইন ও ভূমি অধিগ্রহণের কাজ চলমান। ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল সিস্টেম এবং রোলিং স্টক(রেল কোচ) ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ করা কাজের অগ্রগতি ৫৯ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

ইতোমধ্যে মেট্রোরেলের ভাড়া নির্ধারণ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে। ভাড়া নির্ধারণে ভারতসহ অন্যান্য দেশকে গুরুত্ব দেওয়া হবে। এসব দেশে যেসব বিষয় আমলে নিয়ে ভাড়া নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ একই পথ অনুসরণ করবে।

মেট্রোরেল প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। সংস্থাটি এসব তথ্য জানায়।

বুধবার (৩০ জুন) ডিএমটিসিএল মেট্রোরেল-৬ এর সর্বশেষ অগ্রগতি প্রকাশ করে। প্রকাশিত অগ্রগতিতে এসব তথ্য জানা গেছে।

ডিএমটিসিএল জানায়, ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার  ভায়াডাক্টের মধ্যে ১৩ দশমিক  ২৭৫ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট দৃশ্যমান হয়েছে। প্যাকেজ-০৭ এর আওতায় ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড মেকানিক্যাল সিস্টেম কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালে। উত্তরা ডিপোতে রিসিভিং সাব স্টেশনের পূর্ত কাজ শেষ করে বিদ্যুতায়নের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। মতিঝিল রিসিভিং সাব স্টেশনের ভবন নির্মাণ কাজ চলমান। ডিপো এলাকার ওয়ার্কশপ শেডের অভ্যন্তরে ১২টি রেল লাইনের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। স্ট্যাবলি শেডের অভ্যান্তরে এবং সংলগ্ন ইয়ার্ডে ১৯টি ব্যালাস্টেড রেল লাইনের মধ্যে সকল রেল লাইনের স্থাপন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ভায়াডাক্টের ওপর মেইন লাইনের ২ হাজার ৬৭৮টি লে জয়েন্ট ওয়েল্ডিংয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগারগাঁও পর্যন্ত ২৩ দশমিক ৯৬ কিলোমিটার রেল ট্র্যাক লাইনের মধ্যে সাড়ে ১৭ কিলোমিটার রেল ট্র্যাক অ্যালাইনমেন্টের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তার মধ্যে ১৪ দশমিক ৫০ কিলোমিটার রেল লাইন স্থাপন কাজ চলমান।

সাড়ে ১২ কিলোমিটার ওয়্যারিং সম্পন্ন হয়েছে। উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট ও ৯টি স্টেশন নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। সব স্টেশনের উপ কাঠামো নির্মাণ এবং সব ভায়াডাক্টের উপর স্থাপন সম্পন্ন হয়েছে। উত্তরা উত্তর, উত্তরা সেন্টার, উত্তরা দক্ষিণ, পল্লবী ও মিরপুর-১০ নম্বর স্টেশনের ছাদ নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে মিরপুর-১১, কাজীপাড়া ও শেওড়াপাড়া এবং আগারগাঁও স্টেশনের ছাদ নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। উত্তরা উত্তর, উত্তরা সেন্টার, উত্তরা দক্ষিণ ও পল্লবী স্টেশনের স্টিলের ছাদ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। মিরপুর-১১ স্টেশনের ছাদ নির্মাণ কাজ চলমান।

ঢাকার যানজট নিরসন ও নগরবাসীর যাতায়াত আরামদায়ক, দ্রুততর ও নির্বিঘ্ন করতে ২০১২ সালে গৃহীত হয় মেট্রোরেল প্রকল্প। প্রকল্পের মোট ব্যয় ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকা। এরমধ্যে ১৬ হাজার ৫৯৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ঋণ দিচ্ছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)।