• শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ১ ১৪২৮

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

পোশাক খাতে শীর্ষে বাংলাদেশ, অবস্থান ধরে রাখতে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১  

তৈরি পোশাকের বিশ্ববাজারে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেলে ইতোমধ্যে শীর্ষ রপ্তানিকারক দেশ হয়েছে বাংলাদেশ। তৈরি পোশাকের বিশ্ববাজারে দীর্ঘ সময় ধরে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে 'মেইড ইন বাংলাদেশ'। যদিও গত দেড় থেকে দুই বছরে বাংলাদেশকে ব্যাপক প্রতিযোগিতার মুখে ফেলেছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ভিয়েতনাম।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সবশেষ তথ্য পর্যালোচনায় উঠে আসে ২০২০ সালে তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বাংলাদেশকে টপকে ভিয়েতনাম হয়েছে দ্বিতীয় শীর্ষ রপ্তানিকারক দেশ।

তবে, চলতি বছরের প্রথম ৭ মাসে আবার এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। এ সময়ে দুই দেশের রপ্তানি আয়ের পরিসংখ্যানে দেখা যায় তৈরি পোশাক রপ্তানি খাত থেকে ভিয়েতনামের চেয়ে ১৯৩ কোটি ৭২ লাখ ডলার বেশি আয় করেছে বাংলাদেশ। আগামী কয়েক মাসে এ ব্যবধান আরও বাড়বে বলে দাবি তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএর।
বিজিএমইএ বলছে, চলতি বছর শেষ হতে হতে ভিয়েতনাম থেকে অনেক এগিয়ে যাবে 'মেইড ইন বাংলাদেশ'। পোশাকের বিশ্ববাজারে যেন আর জায়গা হারাতে না হয়, সেদিকে নজর দিয়েই কর্মপরিকল্পনা সাজানোর পরামর্শ অর্থনীতি বিশ্লেষকদের।

বিজিএমইএয়ের সহসভাপতি শহীদুল্লাহ আজীম বলেন, আমাদের হাতে ভালো অর্ডার আছে। নভেম্বর-ডিসেম্বরে আমাদের প্রবৃদ্ধি অনেক বাড়বে। এরই  মধ্যে আমরা ভিয়েতনাকে পার করে এসেছি। আমরা কিন্তু ২ মিলিয়ন ডলার এগিয়ে আছি তাদের থেকে এ ৭ মাসে। আশা করছি সামনে আরও এগিয়ে যাব।   

অবশ্য শঙ্কাও রয়েছে। কারণ, উন্নতমানের পোশাক রপ্তানি করে ভিয়েতনাম। সেদিকেই বাড়ছে ভোক্তা চাহিদা। এ অবস্থায়, বাংলাদেশের অবস্থান শক্ত করতে বাজারমুখী পরিকল্পনা সাজানোর তাগিদ অর্থনীতি বিশ্লেষক।

অর্থনীতি বিশ্লেষক ড. মাহফুজ কবীর বলেন, আমাদের দেশকে একটা টাইমলাইন তৈরি করতে হবে। টাইমলাইন অনুসারে যাতে করে আমরা, ২০২৬ সালে যখন এলডিসি থেকে বের হয়ে আসব তখন যেন আমাদের তৈরি পোশাকের রপ্তানির পরিমাণটা ভালো থাকে, সে জন্য এই যে নিচু থেকে উচ্চ রেটে যাওয়ার প্রবণতা সেটা যেন বজায় থাকে।

বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাত যেখানে ওভেন ও নিটওয়্যার নিয়ে সেখানে ভিয়েতনামের এই খাতের রপ্তানি আয় হিসাব করা হয় ওভেন-নিট ও বস্ত্র খাতের যোগফলে।