• মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৯

  • || ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা বাংলাদেশ যেন দুর্ভিক্ষের কবলে না পড়ে: প্রধানমন্ত্রী সংঘাত-দুর্যোগে নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বাড়ে: প্রধানমন্ত্রী ১০ ডিসেম্বর বিএনপির মহাসমাবেশ, পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন শিক্ষক বদলি শুরু ১৫ সেপ্টেম্বর

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর ২০২২  

সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলির অনলাইন আবেদন আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করা হবে। এটি চলবে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর এক সপ্তাহের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম। আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস-২০২২ আয়োজন উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বর্তমানে শুধুমাত্র আন্তঃউপজেলা ও উপজেলার বাইরে শিক্ষকরা বদলি হতে পারবেন। জেলা ও মহানগর পর্যায়ে এ বদলি কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। অনলাইন মাধ্যমে এ কার্যক্রম চলবে।

সম্প্রতি পাইলটিং কার্যক্রম সফল হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম।

তিনি বলেন, বর্তমানে সারাদেশে ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলছে। বর্তমানে তৃতীয় ধাপে কয়েকটি জেলায় মৌখিক পরীক্ষা চলছে। সেটি অক্টোবরের আগে শেষ হবে। অক্টোবরের মধ্যে চূড়ান্তভাবে বিজয়ীদের ফলাফল প্রকাশ করে যোগদান দেওয়া হবে।

সিনিয়র সচিব আরও বলেন, বলেন, সারাদেশের অনেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদ শূন্য রয়েছে। সঠিক সংখ্যা নির্ণয়ে শিক্ষক বদলি কার্যক্রম আগে করা হবে। শিক্ষকদের বদলি শেষে শূন্য আসনের সঠিক সংখ্যা পাওয়া যাবে। তার ওপর ভিত্তি করে সব শূন্য পদে যোগ্যদের নিয়োগ দেওয়া হবে।

প্রাথমিকে মিড ডে মিল কর্মসূচি কবে থেকে চালু করা হবে জানতে চাইলে আমিনুল ইসলাম বলেন, মিড ডে মিল কর্মসূচি বাস্তবায়ন বর্তমান সরকারের একটি নির্বাচনী ইশতেহার। প্রধানমন্ত্রী এটি চলমান রাখতে গুরুত্ব দিয়েছেন। স্কুলগুলোতে মিড ডে মিল হিসেবে যে বিস্কুট বিতরণ করা হতো সেটির স্বাদ-গন্ধ নিয়ে নানা বির্তক তৈরি হয়। সে কারণে নতুন করে এটি নিয়ে ফিজিবিলিটি স্টাডি করা হচ্ছে। স্কুলে কী ধরনের খাবার দেওয়া হবে তা নির্ধারণ করা হবে। আগামী বছর থেকে দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ কার্যক্রম চালু করা হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা উপমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মহিবুর রহমান প্রমুখ।