• শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ২ ১৪২৮

  • || ০৯ সফর ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

৪০ বছর পর চার্লস-ডায়ানার বিয়ের কেক নিলামে

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৩ আগস্ট ২০২১  

প্রিন্স চার্লস ও প্রিন্সেস ডায়ানার বিয়ে হয়েছিল ১৯৮১ সালে। তাঁদের দুই সন্তান হয়েছে। বিবাহবিচ্ছেদও হয়েছে। এরপর প্রয়াত হন ডায়ানা। চার্লস ফের বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন। তবে চার্লস ও ডায়ানাকে নিয়ে মানুষের আগ্রহ কমেনি। তার প্রমাণ, চার দশক পর চার্লস-ডায়ানার বিয়ের কেকের একটি টুকরো নিলামে ওঠার ঘটনায় আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। এ খবর ডেইলি এক্সপ্রেসের।

রাজকীয় ওই বিয়েতে মোট ২৩টি কেক কাটা হয়েছিল। এর মধ্য থেকে একটি কেকের টুকরা নিলামে তুলছে ব্রিটিশ ডোমিনিক উইন্টার অকশনস। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১১ আগস্ট কেকের টুকরোটির নিলাম হওয়ার কথা।

নিলাম সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ৪০ বছর আগের রাজকীয় বিয়ের এই কেকটি সোনালি, লাল, নীল, সাদা ও রুপালি রঙের মিশেলে বানানো হয়েছিল। এটি ৫ ফুট লম্বা ছিল, এর ওজন ছিল ২২৫ পাউন্ড। তবে যে টুকরাটির নিলাম হবে তার ওজন ২৮ আউন্সের মতো। 

এতো দিন পর কী ভাবে মিলল এই রাজকীয় কেক? জানা গেছে, রাজপরিবারের পক্ষ থেকে এটি পাঠানো হয়েছিল ময়রা স্মিথ নামের এক ব্যক্তিকে। তিনি রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের মায়ের অফিসে কাজ করতেন। ৪০ বছর ধরে স্মিথ পরিবার কেকের টুকরাটি প্লাস্টিকে মুড়ে টিনের কৌটায় সংরক্ষণ করে রেখেছেন। 

২০০৮ সালে সেটি স্মিথ পরিবারের হাত থেকে নিলামকারী সংস্থার হাতে আসে। তবে তখনই এটা নিলামে তোলা হয়নি। আরও ১৩ বছর পর কেকের টুকরাটি নিলামে তোলার উদ্যোগ নেয়া হলো। ন্যূনতম ২০০ পাউন্ড বা ২৭৮ ডলার থেকে এটির দাম শুরু হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

নিলামকারী সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ৪০ বছরের পুরোনো হলেও রাজকীয় বিয়ের কেকের এই টুকরা এখনও ভাল আছে। তবে প্রতিষ্ঠানটি পরিষ্কার করে দিয়েছে, কেকটি ভাল অবস্থায় থাকলেও এটা মোটেই খাওয়ার যোগ্য নয়।