• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২১ ১৪২৯

  • || ১২ রজব ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় আরেকটি মাইলফলক স্থাপিত হলো: প্রধানমন্ত্রী জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী ২০২২ সালে বিদেশে গেছেন ১১ লাখ ১৩ হাজার ৩৭৪ কর্মী: প্রধানমন্ত্রী পাতাল রেল নির্মাণকাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী সাগরের পানি থেকে হাইড্রোজেন বিদ্যুৎ উৎপাদনে আলোচনা চলছে

মিয়ানমারে বেড়েছে জান্তা বাহিনীর বিমান হামলা

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০২২  

চলতি বছরের মার্চ থেকেই মিয়ানমারে ব্যাপক হারে বিমান হামলা বাড়িয়েছে জান্তা বাহিনী, এমনটাই জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। শুধু অক্টোবরেই ২০ বারের বেশি বিমান হামলায় প্রাণ গেছে শতাধিক মানুষের। বিশ্লেষকদের দাবি, ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে ভূখণ্ডে কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে পারছে না জান্তা প্রশাসন। তাই নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে উঠে পড়ে লেগেছে তারা। খবর ইরাবতীর।

সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, গত ২৩ অক্টোবর মিয়ানমারের কাচিন রাজ্যের একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিমান হামলা চালায় জান্তা বাহিনী। এতে সঙ্গীতশিল্পীসহ বহু মানুষের প্রাণহানি ঘটে। বর্বোরচিত এ ঘটনার পক্ষে এবার সাফাই গেয়েছেন জান্তা বাহিনীর মুখপাত্র জাও মিন তুন। তিনি বলেন, সরকারবিরোধী কার্যক্রমে সরব হয়ে উঠছিলো কাচিন ইন্ডিপেন্ডেনস অর্গানাইজেশন। পাশাপাশি পিপল ডিফেন্স ফোর্সকেও সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডে মদদ দিচ্ছিলেন তারা। এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) হেলিকপ্টার হামলায় সাগাইং অঞ্চলে আবারো ঘটেছে হতাহতের ঘটনা। এতে আবারো আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের শিরোনাম জান্তা সরকারের বর্বরতা।

মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতী জানায়, জান্তা সরকারের অত্যাচার থেকে বাসিন্দারদের রক্ষায় পালাতে সাহায্য করেছিল সশস্ত্র গোষ্ঠী পিপল'স ডিফেন্স ফোর্স। খবর পেয়ে হামলা চালায় জান্তা সেনারা। টানা দুই ঘণ্টা ধরে চলা সংঘর্ষে পর বিমান থেকে গোলাবর্ষণ করে তারা। এতে ঘটনাস্থলেই বেশ কয়েকজন হতাহতের ঘটনা ঘটে।

বিশ্লেষকদের মতে, দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে মিয়ানমারের ক্ষমতা দখল করে রেখেছে জান্তা প্রশাসন। ক্ষমতা গ্রহণের পর বিদ্রোহীদের প্রতিরোধের মুখে ক্রমেই ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে তারা। দেশটির বিদ্রোহীদের গঠিত সরকার বা এনইউজির দাবি, তারা দেশের ৫০ ভাগেরও বেশি ভূখণ্ড নিয়ন্ত্রণ করছে। বিপরীতে জান্তাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আছে মাত্র ৫ থেকে ৬ শতাংশ ভূখণ্ড। ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণ হারানো জান্তাবাহিনী এবার তাদের যুদ্ধবিমানকে কাজে লাগিয়ে তা পুনরুদ্ধারে চেষ্টা করছে।

চলতি বছরের মার্চ থেকেই জান্তাবাহিনী ব্যাপক হারে বিমান হামলা বাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। অক্টোবরের প্রথম ২৮ দিনেই ২০ বারের বেশি বিমান হামলা চালিয়েছে তারা। এসব হামলায় শতাধিক মানুষের প্রাণ গেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, জান্তাবাহিনী ভূখণ্ডে যত বেশি নিয়ন্ত্রণ হারাবে বিমান হামলার আশঙ্কা তত বেশি বাড়তে থাকবে। কারণ, আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় মরিয়া হয়ে উঠেছে জান্তা বাহিনী।