• শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ১ ১৪২৮

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

সকালের নাস্তায় যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০২১  

সুস্থতা বজায় রাখতে চাইলে স্বাস্থ্যকর খাবারের বিকল্প নেই। এজন্য নিয়ম মেনে সঠিক খাবার খেতে হয়। মনে রাখবেন, যতই ব্যস্ত থাকুন না কেন, নিজেকে ফিট রাখতে চাইলে ভুলেও কখনো সকালের নাস্তা বাদ দেয়া যাবে না।  

তবে শরীরকে সুস্থ-সবল রাখার ক্ষেত্রে সকালের নাস্তায় কী খাবার খাওয়া উচিত সেটা জানা জরুরি। অর্থাৎ সকালের নাস্তার দিকে একটু বেশি নজর দেওয়া উচিত। কারণ এ সময় অনেকেই এমন অনেক খাবার খান যা খাওয়া মোটেও শরীরের জন্য ঠিক নয়। এতে হজম বা অ্যাসিডিটির সমস্যা দেখা দিতে পারে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সকালের নাস্তায় কোন খাবারগুলো এড়িয়ে চলবেন-

>> অনেকেরই সকালে এক কাপ গরম কফি দিয়ে দিন শুরু করার অভ্যাস রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালে এ ধরনের অভ্যাস বিপদের ঝুঁকি বাড়ায়। খালি পেটে কফি পান করার ফলে পেটে অ্যাসিডিক জুসের উৎপাদন বাড়তে পারে, যার ফলে গ্যাস্ট্রাইটিসের সমস্যা হতে পারে। অ্যাসিডিটির সমস্যার কারণে অন্যান্য একাধিক শারীরিক সমস্যা বা মানসিক উদ্বেগ বাড়তে পারে। এর ফলে বাড়তে পারে ওজনও।

>> ভিটামিন সি সমৃদ্ধ সাইট্রাস ফল যেমন- টমেটো, কমলা এগুলো ত্বকের জন্য ভালো এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। কিন্তু এ ধরনের ফল পেটে অ্যাসিডের উৎপাদন বাড়ায়। সকালে এ ধরনের ফল খেলে পেট জ্বালা এবং গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হতে পারে।

>> দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায় সালাদ থাকা ভালো, তবে সকালের নাস্তায় এটি না রাখাই স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। কাঁচা শাকসবজিতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকায় হজমে সমস্যা হতে পারে। সকালে কাঁচা শাকসবজি খেলে গ্যাসে পেট ফুলে থাকে। সেই সঙ্গে পেটে ব্যথা পর্যন্তও হতে পারে।

>> অনেকেই সকালে জুস খেতে পছন্দ করেন। কিন্তু সকালে খালি পেটে ফলের রস পান করলে শরীরে শর্করার মাত্রা অস্বাভাবিক হারে বাড়তে পারে। আর এটি অগ্ন্যাশয়ের জন্য ভালো নাও হতে পারে। তাছাড়া অ্যাসিডিটির সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

>> দই অন্ত্রের জন্য খুবই ভালো একটি খাবার। এটি হজমে দারুণ ভূমিকা রাখে। তবে সকালের নাস্তায় দই খাওয়া ঠিক নয়। এতে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড শরীরে অ্যাসিডিটির পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। সেক্ষেত্রে একটু বেলা হলে দই খাওয়া ভালো।

>> অনেকেই নাস্তার আগেই সকালে খালি পেটে কলা খান। কিন্তু এটি খালি পেটে একদমই খাওয়া উচিত নয়। এই ফলের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাসিয়াম থাকায় এটি রক্তে দুটি খনিজের ভারসাম্যহীনতা তৈরি করতে পারে।