• রোববার   ২৫ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১০ ১৪২৮

  • || ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

শরীয়তপুর বার্তা

‘বিপদে ধৈর্য্য হারাবেন না আপনাদের পাশে শেখ হাসিনা আছে’

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১৬ জুন ২০২১  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাহিম রাজ্জাক বলেছেন, দূর্যোগ মোকাবেলায় আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন সফল রাষ্ট্র প্রধান হিসেবে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে প্রশংসিত হয়েছেন। তাই যে কোন বিপদেই আপনারা ধৈর্য্য ও সাহস হারাবেন না। মনে রাখবেন বিপদ আসবে এবং আল্লাহর রহমতে বিপদ চলেও যাবে। তার পরেও জাতির জনকের কন্যা মানবতার মা শেখ হাসিনা আপনাদের পাশে আছেন। আপনারা যাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারেন তার জন্য তিনি অনেক রাত না ঘুমিয়ে কাটিয়ে দেন।

তিনি ১৬ জুন বুধবার তার নির্বাচনী এলাকার গোসাইরহাট উপজেলার নলমুড়ি ইউনিয়নে ঘুর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে নগদ অর্থ ও ঢেউটিন বিতরণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। নলমুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গোসাইরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলমগীর হোসাইন। বিশেষ অতিথি ছিলেন গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ ফজলুর রহমান ঢালী, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ শাহজাহান সিকদার, নলমুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মাহাফুজুর রহমান মিয়া।

নাহিম রাজ্জাক তার বক্তব্যে বিএনপির সমালোচনা করে বলেন এ দলের নেতা বিপদে জনগণের পাশে থাকেনা। তাইতো এখন জনগণও তাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তারা শুধু সরকারের সমালোচনা করে সরকারের উন্নয়ন দেখেনা। সরকার কথা বলতে দেয়না অথচ শেখ হাসিনা তথ্য অধিকার আইন করে দিয়ে প্রমাণ করেছেন, কোনো তথ্য নাগরিক চাইলে তাকে দিতে হবে। এভাবে শেখ হাসিনা তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করেছেন।’ 

করোনা মহামারির কারণে বিশ্বব্যাপী উৎপাদন ব্যবস্থা ও প্রবৃদ্ধিতে ধীরগতি এবং অনেক উন্নত দেশে অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে যেখানে হিমশিম খাচ্ছে সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্জিত প্রবৃদ্ধি এবং ভারসাম্যপূর্ণ ব্যবস্থা ইতিমধ্যে প্রশংসিত হয়েছে। জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা থেকে প্রকাশিত ‘গ্লোবাল ফুড আউটলুক-জুন ২০২১’ শীর্ষক প্রতিবেদনে এসেছে, করোনা এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যেও চাল উৎপাদনে বাংলাদেশ ইন্দোনেশিয়াকে টপকে এখন তৃতীয় স্থানে আছে। নাহিম রাজ্জাক এ সময় দলীয় নেতাকর্মীদের অন্তত তিনটি করে ফলের গাছ লাগাতে বলেন।