• রোববার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ৯ ১৪২৯

  • || ২৮ সফর ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা

শরীয়তপুর সদরে ভূমিহীনদের জন্য ২৮২টি ঘর নির্মাণ হচ্ছে

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২১ এপ্রিল ২০২২  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে শরীয়তপুর সদর উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদে জন্য তৃতীয় পর্যায়ে গৃহ নির্মাণ শীর্ষক টাস্কফোর্স কমিটির সভা থেকে জানানো হয়েছে যে, সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য ২৮২টি গৃহ নির্মাণ হয়েছে।

সভা থেকে আরো জানা গেছে যে, যদি সরকারি খাস জমি নাও থাকে এবং গৃহহীন ও ভূমিহীনদের তালিকা অনুযায়ী গৃহহীন অশিষ্ট থাকে তাহলে সরকার জমি ক্রয় করে গৃহহীনদের আবাসন করবেন। বুধবার দুপুরে সদর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এক সভা থেকে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনদীপ ঘরাই এর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাসেম তপাদার। বিশেস অতিথি ছিলেন পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সামিনা ইয়াসমিন, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ফাতেমা বেগম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন, চিতলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম হাওলাদার, রুদ্রকার ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, আংগারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, তুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান জামাল হোসেন ফকির, ডোমসার ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান খান, চিকন্দী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম মাদবর, শৌলপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান খান ভাষানীসহ প্রশাসনের সকল বিভাগের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনদীপ ঘরাই বলেন, অনেক গৃহহীন রয়েছে যাদের নামে কয়েক পয়েন্ট জমি আছে। সেই জমিতে ঘর হয় না। তাদের ভূমিহীন হিসেবে ঘর দেওয়া যাবে না। যদি তারা সেই জমি বিক্রি করে ভূহিহীন হয়ে যায় তাহলে তাদের ঘরের ব্যবস্থা করা সম্ভব। সদর উপজেলায় প্রথমে ৫০টি ঘরের জন্য খাস জমি পাওয়া যায়নি। এসিল্যান্ড সেখানে ২৮২টি ঘরের জন্য জমির ব্যবস্থা করেছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম তপাদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন কেউ গৃহহীন থাকবে না। তাই সরকারী খাস জমি শেষ হয়ে গেলেও জমি ক্রয় করে গৃহহীনদের জন্য গৃহের ব্যবস্থা করবেন। জেলা প্রমাসনের কাছে এমন বার্তা পৌঁছে গেছে। এক কথায় কেউ গৃহহীন থাকবে না।