• মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা

ভেদরগঞ্জে জাতীয় ফলমেলা শুরু

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০২২  

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ

ভেদরগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগ দিনব্যাপি ফলমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

" বছর ব্যাপি ফল চাষে,অর্থ পুষ্টি  দুই- ই আসে" এ প্রতিপাদ্য নিয়ে ২৮ জুলাই,বৃহস্পতিবার শহীদ আক্কাস শহীদ মহিউদ্দিন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মেলার উদ্বোধন করেন ভেদরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির মোল্লা। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন  উপজেলা পরিষদ ভাইসচেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবদুল মান্নান বেপারী, সহকারী কমিশনার ভুমি  শফিউল মাজলুবিন রহমান, পৌরসভা মেয়র আবুল বাশার চোকদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আকলিমা বেগম, সখিপুর থান অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামান হাওলাদার, ভেদরগঞ্জ  থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ বাহালুল খান,বাহার।

বক্তব্য রাখেন ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডাঃ মোহাম্মদ ফারুক হোসেন, নারায়নপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  হাজি সালাহউদ্দীন মাদবর। 

প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির মোল্লা বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের চিরাচরিত খাদ্যাভ্যাস বদলে যাচ্ছে। দানা জাতীয় খাদ্য গ্রহণ কমিয়ে ফল, শাকসবজি গ্রহণের আগ্রহ বাড়ছে অনেকের মাঝে। আমি আশা করি, এই ইতিবাচক পরিবর্তন চলমান রাখতে এবং দেশে উৎপাদিত ফল সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে সম্যক ধারণা দিতে ‘জাতীয় ফল মেলা ২০২২’ ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে। 

তিনি বেশি করে ফলদ বৃক্ষরোপণে এগিয়ে আসার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সভাপতি বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, মানবদেহের পুষ্টির চাহিদা মেটানোর ক্ষেত্রে ভিটামিন ও খনিজ পদার্থের সহজলভ্য ও প্রাকৃতিক উৎস হলো ফল। আমাদের মাটি ও জলবায়ু বিভিন্ন রকমের ফল চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। কৃষিবান্ধব আওয়ামী লীগ সরকারের যুগোপযোগী নীতি ও বাস্তবমুখী বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে দেশ দানাদার খাদ্যশস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। পাশাপাশি শাকসবজি ও ফলমূল উৎপাদনেও এসেছে ব্যাপক সাফল্য।

আর এটা সম্ভব হয়েছ আমাদের কৃষি বান্দব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা এর আন্তরিকতা প্রচেষ্টার ফলে। তিনি বলেন,আমদের দেশের ফলের চাহিদা পুরণে আমরা সক্ষমতা অর্জন করতে যাচ্ছি। সরকার সহায়তা ও প্রনোদনার মাধ্যমে আমাদের উপজেলায় ৬ শর উপরে পারিবারিক পুষ্টি বাগান স্থাপন করা হয়েছে।