• রোববার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৯

  • || ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রাম সফরে ৩০ প্রকল্প উদ্বোধন প্রতিবন্ধীদের ছাড়া রাষ্ট্রের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়: শেখ হাসিনা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে কত প্রাণ ঝরেছে হিসাব নেই পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশের সর্বত্র শান্তি বজায় রাখতে সরকার বদ্ধপরিকর : প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি

ফের ভাঙনের মুখে জাপা

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২  

আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে জোট নয়, ৩০০ আসনে প্রার্থী দিতে চায় জাতীয় পার্টি (জাপা)। ঠিক এমন পরিস্থিতিতে আবারো ভাঙনের মুখে পড়েছে দলটি।

এবার ভাঙনের শুরু রওশন এরশাদকে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতার পদ থেকে সরিয়ে জিএম কাদেরকে বসানোর চেষ্টা থেকে। এ ইস্যুতে প্রকাশ্যে মন্তব্য করায় গত ১৪ সেপ্টেম্বর মসিউর রহমান রাঙ্গাকে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্যসহ সব পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের গঠনতন্ত্রের ক্ষমতাবলে তাকে অব্যাহতি দেন।

অব্যাহতির আদেশ এরই মধ্যে কার্যকরও হয়েছে। অথচ রাঙ্গা বর্তমানে জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ। তিনি দলটির সাবেক মহাসচিব ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি।

ফলে রাঙ্গার অব্যাহতি ঘিরে চলছে দুই পক্ষের কথা চালাচালি। বৃহস্পতিবার পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছেন পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু ও অব্যাহতি পাওয়া রাঙ্গা। সব মিলিয়ে জাতীয় পার্টিতে সংকট আরো ঘনীভূত।

দলের মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুর অভিযোগ, সংগঠনবিরোধী কার্যক্রমের কারণে রাঙ্গাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। কিছুদিন ধরে তিনি জাতীয় সংসদসহ বিভিন্ন ফোরামে দলের স্বার্থবিরোধী কথাবার্তা বলেছেন। এমন প্রেক্ষাপটে দুই তিন মাস আগেও রাঙ্গাকে দল থেকে অব্যাহতির কথা চিন্তা করেছিলেন পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তবে সে সময় ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে যান রাঙ্গা।

মসিউর রহমান রাঙ্গা জানান, রওশন এরশাদকে সরিয়ে জিএম কাদেরকে জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা করতে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে, তার প্রক্রিয়া সঠিক ছিল না। একটি বেসরকারি টেলিভিশনে এমন বক্তব্য দেওয়ায় তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তার সঙ্গে অন্যায় করা হয়েছে।

জাতীয় পার্টির একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বিরোধী দলীয় নেতার পদ থেকে রওশন এরশাদকে সরানোর ইস্যুতে মসিউর রহমান রাঙ্গা যে প্রতিক্রিয়া গণমাধ্যমে দিয়েছেন, তা মোটেও পছন্দ হয়নি জিএম কাদেরের। শ্রমিক নেতা হওয়ায় রাঙ্গা বিভিন্ন সুবিধা ভোগ করেন। এজন্য পার্টির অনেক শীর্ষ নেতাও তার ওপর ক্ষুব্ধ। সেসব নেতারা পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের কানভারি করে রাঙ্গাকে অব্যাহতি দিতে প্ররোচিত করে থাকতে পারেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, ওনার (জিএম কাদেরের) বয়স হয়ে গেছে। হয়তো ওনি মনে করছেন, যেকোনো সময় তিনি অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন। ঐ কারণে মনে করতে পারেন, রাঙ্গাই চেয়ারম্যান হয়ে যাচ্ছেন। ওনি প্রায়ই মনে করেন, আমি মনে হয় চেয়ারম্যান পদ নিয়ে নিচ্ছি। এটাই প্রধান কারণ। অন্য কিছু দেখি না।