• রোববার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৯

  • || ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রাম সফরে ৩০ প্রকল্প উদ্বোধন প্রতিবন্ধীদের ছাড়া রাষ্ট্রের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়: শেখ হাসিনা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে কত প্রাণ ঝরেছে হিসাব নেই পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশের সর্বত্র শান্তি বজায় রাখতে সরকার বদ্ধপরিকর : প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি

শয়তান যেভাবে মুমিনের আমলকে ধ্বংস করে দেয়

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৩ সেপ্টেম্বর ২০২২  

শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। মানুষের কোনো আমল সফল হোক এটি সে চায় না। কিন্তু মহান আল্লাহর কাছে দুনিয়াতে মানুষ প্রেরণের উদ্দেশ্য কখন সফল হবে? দুনিয়াতে মানুষের প্রতিটি কাজ যখন আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের দিকনির্দেশনা অনুযায়ী হবে। তখনই আল্লাহ তাআলা কর্তৃক প্রতিনিধি প্রেরণের উদ্দেশ্য সফল হবে। অথচ বিতাড়িত শয়তান ইবলিস মানুষের কিছু উত্তম কাজকে ৩টি কাজের মাধ্যমে ধ্বংস করে দেয়। সেই কাজগুলো কী?

শয়তান মানুষের পাঁচটি আমলকে তিনটি কাজের মাধ্যমে ধ্বংস করে দেয়। আল্লামা ইমাম ফখরুদ্দিন রাজি রাহমাতুল্লাহি আলাইহি বিষয়টি এভাবে তুলে ধরেছেন, ‘দুনিয়া হলো একটি বাগান। এতে রয়েছে-

১. ওলামায়ে কেরামের ইলম বা জ্ঞান। যা পথহারা মানুষকে সঠিক পথের দিকনির্দশনা দেয়।

২. ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত নেতার সুবিচার। যার মাধ্যমে মানুষ বিচারের সঠিক ফয়সালা পায়।

৩. ইবাদাত-বন্দেগিতে মশগুল লোকদের ইবাদাত। যা মানুষের অন্তরে মহান আল্লাহর ভয় ও মহব্বত তৈরিতে উদ্বুদ্ধ করে।

৪. ব্যবসায়ীদের আমানত। অর্থাৎ হালাল ও হারাম মেনে ব্যবসা পরিচালনাকরী ব্যবসায়ী। যিনি আমানতদারীতার সঙ্গে ব্যবসা পরিচালনা করেন।

৫. উপদেশদানকারীদের উপদেশ। যা ইলম বঞ্চিত মানুষকে আল্লাহর দিকে ফিরে আসার উপদেশ দেয়।

অথচ বিতাড়িত শয়তান ইবলিস দুনিয়ার এ মানব বাগানের সর্বোত্তম ৫টি কাজকে ধ্বংস করার জন্য সদা প্রস্তুত। এজন্য শয়তান তিনটি ক্ষতিকর কাজকে মানুষের সামনে দাঁড় করিয়ে দেয়। তাহলো-

১. আলেমের ইলম, নেতার সুবিচার ও ইবাদাতে মশগুল ব্যক্তির পাশে রেখেছে ‘রিয়া’ বা ‘লোক দেখানোর দুর্বলতা’ নামক আমল ধ্বংসকারী জিনিস।

২. ব্যবসায়ীর আমানতকে বিনষ্ট করতে পাশে রেখেছে মারাত্মক ক্ষতিকর খেয়ানাত।

৩. দ্বীনের উপদেশকে কলংকিত করতে পাশে রেখেছে প্রতারণা নামক কলংক।

আল্লাহর একান্ত রহমত ও শয়তান থেকে আত্মরক্ষার আমল ছাড়া এ ক্ষতি থেকে বেঁচে থাকার কোনো উপায় নেই। তাই শয়তানের আক্রমণ থেকে বেঁচে থাকতে বেশি বেশি আল্লাহ তাআলার সাহায্য পাওয়ার উপায়গুলো অবলম্বন করা জরুরি।

আল্লাহ তাআলার কাছে প্রার্থনা, তিনি যেন উম্মাতে মুসলিমাকে উত্তম আমলগুলোর বিপরীতে রিয়া, খেয়ানত ও প্রতরণা থেকে হেফাজত করেন। যথাযথভাবে আল্লাহর পথে চলার তাওফিক দান করেন। আমিন।