• শনিবার   ২৬ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৯

  • || ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
যারা উন্নয়ন দেখে না, তারা চাইলে চোখের ডাক্তার দেখাতে পারে- প্রধানমন্ত্রী অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সক্ষম হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আইওআরএ মন্ত্রীদের সাক্ষাৎ যোগাযোগ সম্প্রসারণে বাংলাদেশের সহযোগিতা চায় আমিরাত আ.লীগ স্বাস্থ্য খাতকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়: প্রধানমন্ত্রী এমপিদের ভবন প্রাঙ্গণে মীনা বাজার স্থাপন আনন্দের: স্পিকার ব্যাংকে টাকা না থাকার গুজবে চোরেরা সুযোগ নেবে: প্রধানমন্ত্রী ‘যা চাইবেন তার চেয়ে বেশি দেবো, ওয়াদা দেন নৌকায় ভোট দেবেন’ মালয়েশিয়ার নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন সচিব সভায় ১০ নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

আল্লাহর ভয় ছাড়া খাঁটি মুসলমান হওয়া যায় না

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১ অক্টোবর ২০২২  

মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে সে-ই সবচেয়ে সম্মানিত যে সবচেয়ে বেশি তাকওয়াবান। ’ (সুরা হুজরাত, আয়াত : ১৩)
পবিত্র কোরআনে এসেছে, ‘আল্লাহকে যথাসম্ভব ভয় করো, যেমন ভয় করা উচিত এবং মুসলমান না হয়ে মৃত্যুবরণ করো না। (সুরা আলে-ইমরান, আয়াত : ১০২)

আবু হুরায়রা রাদিআল্লাহু আনহু বর্ণিত, ‘আমি রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর কাছে শুনেছি, ‘সাত ব্যক্তিকে আল্লাহ কিয়ামতের দিন আরশের ছায়া দান করবেন; যেদিন তাঁর ছায়া ছাড়া অন্য কোনো ছায়া থাকবে না। তন্মধ্যে ওই ব্যক্তি, যে নির্জনে আল্লাহকে স্মরণ করে; আর তার চোখ থেকে পানি ঝরে। ’ (বুখারি)

ইবনু আব্বাস রাদিআল্লাহু আনহু বর্ণিত, ‘আমি রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-কে বলতে শুনেছি; তিনি বলেছেন, ‘দুটি চোখকে দোজখের আগুন স্পর্শ করবে না। প্রথম হলো সেই চোখ, যা আল্লাহর ভয়ে কাঁদে; দ্বিতীয় হলো সেই চোখ, যা আল্লাহর পথে (সীমান্ত) প্রহরায় জেগে থাকে। ’ (তিরমিজি)

পবিত্র কোরআনের বাণী, ‘নিশ্চয়ই তিনি হাসান এবং তিনি কাঁদান। ’ (সুরা নাজম, আয়াত : ৪৩)

আবু হুরায়রা রাদিআল্লাহু আনহু বলেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আমি যা জানি তোমরা যদি তা জানতে, তবে তোমরা খুব কমই হাসতে এবং খুব বেশি কাঁদতে...। ’ (বুখারি)

প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, ‘ওই ব্যক্তি ধ্বংস হোক, যে মানুষকে হাসানোর উদ্দেশ্যে কথা বলতে গিয়ে মিথ্যা বলে। সে নিপাত যাক। সে নিপাত যাক। ’ (তিরমিজি)

উকবাহ ইবনে আমির রাদিআল্লাহু আনহু বলেন, একদিন আমি রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে জিজ্ঞেস করলাম, (হে আল্লাহর রাসুল!) মুক্তির উপায় কী? রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, ‘তুমি নিজের মুখের নিয়ন্ত্রণ করো, নিজের ঘরে পড়ে থাকো এবং নিজের পাপের জন্য ক্রন্দন করো। ’ (তিরমিজি)

আবু হাজেম র. বলেন, জিবরাইল আলাইহিস সাল্লাম নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর কাছে এসে একজনকে ক্রন্দনরত দেখলেন। জিবরাইল আলাইহিস সাল্লাম রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-কে জিজ্ঞেস করলেন, সে কে? রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জবাব দিলেন, সে অমুক। তারপর জিবরাইল আলাইহিস সালাম বলেন, ‘আমরা ফেরেশতাকুল আদম সন্তানের সব আমল পরিমাপ করতে পারি, কান্না ছাড়া।’ (কুরতুবি)