• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২১ ১৪২৯

  • || ১২ রজব ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় আরেকটি মাইলফলক স্থাপিত হলো: প্রধানমন্ত্রী জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী ২০২২ সালে বিদেশে গেছেন ১১ লাখ ১৩ হাজার ৩৭৪ কর্মী: প্রধানমন্ত্রী পাতাল রেল নির্মাণকাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী সাগরের পানি থেকে হাইড্রোজেন বিদ্যুৎ উৎপাদনে আলোচনা চলছে

হাইব্রিড ভাইরাসের সন্ধান

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ অক্টোবর ২০২২  

মানবদেহের রোগ-প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে পারে প্রথমবারের মতো এমন হাইব্রিড ভাইরাসের সন্ধান পেয়েছেন গবেষকরা। ইনফ্লুয়েঞ্জা ও আরএসভি- দুই ভাইরাসের সংমিশ্রণে গঠিত নতুন ভাইরাসটি অ্যান্টিবডিকেও উপেক্ষা করে সংক্রমণ চালিয়ে যেতে পারে। এর কারণেই অনেক ক্ষেত্রে নিউমোনিয়াসহ ফুসফুসে সংক্রমণের মতো রোগের চিকিৎসা কঠিন হয়ে পড়ে বলে জানান গবেষকরা।

ইনফ্লুয়েঞ্জা বা ফ্লু ভাইরাসের সঙ্গে বিশ্বের অধিকাংশ মানুষ পরিচিত। প্রতিবছর বিভিন্ন দেশে ৫০ লাখেরও বেশি মানুষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়।

অন্যদিকে রেপিরেটরি সিংকশিয়াল ভাইরাস বা আরএসভি- শিশু ও বয়স্কদের কাছে খুব পরিচিত নাম। প্রতি বছর বিশ্বে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয় অন্তত ৬ কোটি ৪০ লাখ মানুষ। মারা যায় দেড় লাখেরও বেশি।

একসাথে এ দুই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনাও কম নয়। সম্প্রতি মানবদেহের ফুসফুসে একই কোষে একসঙ্গে দুই ভাইরাসের উপস্থিতি নিয়ে গবেষণা চালান গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। তারা জানান, স্বাভাবিকভাবে প্রতিযোগিতায় নামার পরিবর্তে দুই ভাইরাস মিলে পাম গাছ আকৃতির একটি হাইব্রিড ভাইরাস রূপ নিয়েছে।

সম্পূর্ণ ভিন্ন পরিবারের দুই ভাইরাস যুক্ত হয়ে নতুন ভাইরাসে পরিণত হওয়ার ঘটনা এই প্রথম বলে জানান গবেষকরা।

আতঙ্কের বিষয় হচ্ছে, হাইব্রিড ভাইরাসটি মানুষের রোগ-প্রতিরোধ ব্যবস্থা এমনকি অ্যান্টিবডিকেও ফাঁকি দিতে সক্ষম। ফুসফুসে সংক্রমণসহ নিউমোনিয়ার মতো রোগগুলোকে মারাত্মক পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারে।

বিজ্ঞানীদের ধারণা, শুধু ফ্লু ও আরএসভি’র সংমিশ্রণ নয়, গবেষণা চালালে এমন আরও অনেক হাইব্রিড ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া যাবে।

এ অবস্থায় একটি ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর রোগী যাতে অন্য ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়, সে ব্যাপারে সতর্ক থাকার পরামর্শ তাদের।