• বুধবার ২৯ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪৩১

  • || ২০ জ্বিলকদ ১৪৪৫

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ বিশ্ব শান্তি রক্ষায় এক অনন্য নাম : রাষ্ট্রপতি রাত ২টা পর্যন্ত নিজেই দুর্যোগ মনিটর করেছেন প্রধানমন্ত্রী রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ দ্রুত মেরামতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বৃহস্পতিবার পটুয়াখালী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী আবহাওয়া স্বাভাবিক হলে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যাবেন শেখ হাসিনা ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার অগ্রযাত্রায় মার্কিন ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক ডকুমেন্টারি ‘কলকাতায় মুজিব’ অবলোকন ঢাকাবাসীকে সুন্দর জীবন উপহার দিতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় রেমাল : ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়: প্রধানমন্ত্রী

দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নতির জন্য আ. লীগের বিকল্প নেই

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

এ দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নতির জন্য আওয়ামী লীগের কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় ডেপুটি স্পিকার শামুসল হক টুকুর সভাপতিত্ব অধিবেশনে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরে তাজুল ইসলাম বলেন, আপনারা সমালোচনা করেন, আমাদের সমালোচনা করেন, কিন্তু আপনারা এক ফোঁটা বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারেনি। মানুষকে দরিদ্র করেছেন, কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করেছেন। এখন উন্নয়ন বন্ধ করার জন্য, মানুষের মধ্যে হাহাকার সৃষ্টি করার জন্য তারা ক্ষমতায় আসতে চায়।

তিনি বলেন, অনেক উন্নয়ন হয়েছে, এই উন্নয়নের যাত্রা অব্যাহত থাকুক এটা আমরা চাই। আমি একজন মন্ত্রী বা এমপি হিসেবে নয়, আওয়ামী লীগার হিসেবে নয়, একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে আমি মনে করি এদেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নতির জন্য আওয়ামী লীগের কোনো বিকল্প নেই। বঙ্গবন্ধুর দর্শনের কোনো বিকল্প নেই, শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই।

স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী বলেন, এখন বিএনপি এবং ওনাদের শরিকরা বুঝে ফেলেছে যে আর ক্ষমতায় যেতে পারবে না। ওনারা বলেন সরকার তাদের সভা করতে দেয় না, সভা করতে ওনাদের কে নিষেধ করেছে? নিজেরা মারামারি-পিটাপিটি করে, সমস্যা সৃষ্টি করে এরপরে সভা সমাবেশে করেছে, সব কিছু করে দেখেছে ক্ষমতায় যেতে পারবে না। এখন তত্ত্বাবধায়ক সরকার বলা বন্ধ করেছে, বন্ধ করে ওনাদের শরিকরা বলছে যে অনির্বাচিত, অসাংবিধানিক সরকার যদি দুই তিন বছর ক্ষমতায় থাকে তাহলে কোনো অসুবিধা নেই। তিনি বলেন, অসাংবিধানিক সরকার এটা চিন্তা করা কোনো সুস্থ মানুষের কাজ হতে পারে না। যারা এ কথা বলে তারা রাষ্ট্রদ্রোহিতার কাজ করে। আমি মনে করি রাষ্ট্রকে যেভাবে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে, পালন করা উচিত।