• শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১০ ১৪৩০

  • || ১২ শা'বান ১৪৪৫

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রণব মুখার্জী জন্মবার্ষিকী

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০২৩  

ভারতের প্রথম বাঙালী রাষ্ট্রপতি, বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু প্রণব মুখার্জীর জন্মদিন ১১ ডিসেম্বর ১৯৩৫।

জীবনপঞ্জি

• ১১ ডিসেম্বর ১৯৩৫ জন্ম বীরভূম জেলার কীর্ণাহারের কাছে মিরিটি গ্রামে। বাবা স্বাধীনতা সংগ্রামী কামদাকিঙ্কর মুখোপাধ্যায়। মা রাজলক্ষ্মী মুখোপাধ্যায়।

• পড়াশোনা সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও ইতিহাসে এমএ। পরে এলএলবি।

• আপার-ডিভিশন ক্লার্কের কাজ নেন পোস্ট অ্যান্ড টেলিগ্রাফে। শিক্ষকতা করেন হাওড়া জেলার বাঁকড়া ইসলামিয়া হাইস্কুলে ও পরে বিদ্যানগর কলেজে।

• ১৯৫৭ সালের ১৩ জুলাই বিয়ে শুভ্রাদেবীর সঙ্গে।

• ১৯৬০ সালের ২ জানুয়ারি প্রথম সন্তান অভিজিতের জন্ম।

• ১৯৬৫-র ৩০ অক্টোবর মেয়ে শর্মিষ্ঠার জন্ম। শর্মিষ্ঠার এক ভাই রয়েছে, ইন্দ্রজিৎ।

• ১৯৬৬ অজয় মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বাংলা কংগ্রেসে যোগ দিয়ে রাজনীতিতে হাতেখড়ি।

• জুলাই ১৯৬৬ পশ্চিমবঙ্গ থেকে কংগ্রেসের টিকিটে রাজ্যসভার সাংসদ। পরে ১৯৭৫, ১৯৮১, ১৯৯৩ এবং ১৯৯৯ সালেও রাজ্যসভায় নির্বাচিত হন।

• ১৯৭৩ সালে হন কেন্দ্রীয় শিল্পোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী।

• ১৯৮০ কংগ্রেসের রাজ্যসভার নেতা।

• ১৯৮২ একাধিক মন্ত্রকের ভার সামলে প্রথম বার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

• ১৯৮৪ সালে ইন্দিরা গাঁধীর মৃত্যুর পরে রাজীব গাঁধীর মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাননি। কংগ্রেস ছেড়ে গড়েন রাষ্ট্রীয় সমাজবাদী কংগ্রেস।

• ১৯৮৯ সালে কংগ্রেসে মিশে যায় তাঁর দল।

• ১৯৯১ সালে রাজীবের মৃত্যুর পরে ফের রাজনীতির জগতে উত্থান। প্রধানমন্ত্রী নরসিংহ রাও বসালেন যোজনা কমিশনের ডেপুটি চেয়ারপার্সন পদে।

• ১৯৯৫ সালে রাও সরকারের অর্থমন্ত্রী।

• ১৯৯৮ সালে সীতারাম কেশরীকে সরিয়ে সনিয়া গাঁধীকে কংগ্রেস সভানেত্রী করার মুখ্য কারিগর।

• ২০০৪ সালে জঙ্গিপুর থেকে জিতে প্রথম বার লোকসভার সাংসদ। প্রতিরক্ষামন্ত্রী হন কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ সরকারের।

• ২০০৬ সালে মনমোহন সিংহ সরকারের বিদেশমন্ত্রী।

• ২০০৮ সালে পদ্মবিভূষণ।

• ২০০৯ সালে আবার অর্থমন্ত্রী।

• ২০১২ দীর্ঘ ২৩ বছর কংগ্রেস কর্মসমিতির সদস্য ও ৯৫টিরও বেশি মন্ত্রিগোষ্ঠীর সদস্য থাকার পরে দলীয় রাজনীতি থেকে অবসর। ইউপিএ-র প্রার্থী হিসেবে ত্রয়োদশ রাষ্ট্রপতি।

• ১৮ অগস্ট ২০১৫ পত্নীবিয়োগ।

• ২৫ জুলাই ২০১৭ রাষ্ট্রপতি পদ থেকে অবসর।

• ৭ জুন ২০১৮ প্রথম বার প্রাক্তন কোনও রাষ্ট্রপতি হিসেব আরএসএসের অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

• ২০১৯ সালে ভারতরত্ন।