• রোববার ১৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪৩১

  • || ০৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীকে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প শোনালেন সুবিধাভাগীরা

চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০২৪  

সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করে জারি করা পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করে রায় দিয়েছেন হাই কোর্ট। গতকাল মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের এক রিটে জারি করা রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাই কোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। ফলে এখন মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নবম থেকে ১৩তম গ্রেডে নিয়োগ দেওয়ায় আর কোনো বাধা থাকল না।

আদালতে রিটকারীর পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. মুনসুরুল হক চৌধুরী ও মো. শফিকুল ইসলাম রিপন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ সাইফুজ্জামান জামান।

রিটকারীর আইনজীবী শফিকুল ইসলাম রিপন বলেন, এ রায়ের ফলে বাতিল করা ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহাল হয়েছে। এর মাধ্যমে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরির নিয়োগে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হলো। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ সাইফুজ্জামান জামান বলেন, আদালত বলেছেন কোটা থাকবে। এখন রায়ের অনুলিপি পেলে বুঝতে পারব রায়টি কেবল মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে, না গোটা কোটা পদ্ধতির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

তবে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করার বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের দফতরে নোট দেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর কোটা পদ্ধতি বাতিল করে পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ওই পরিপত্র চ্যালেঞ্জ করে ২০২১ সালে হাই কোর্টে রিট করেন অহিদুল ইসলামসহ সাত শিক্ষার্থী। ওই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে একই বছরের ৭ ডিসেম্বর রুল জারি করেন হাই কোর্ট। সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করে জারি করা পরিপত্র কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় রুলে।