• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২১ ১৪২৯

  • || ১২ রজব ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় আরেকটি মাইলফলক স্থাপিত হলো: প্রধানমন্ত্রী জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী ২০২২ সালে বিদেশে গেছেন ১১ লাখ ১৩ হাজার ৩৭৪ কর্মী: প্রধানমন্ত্রী পাতাল রেল নির্মাণকাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী সাগরের পানি থেকে হাইড্রোজেন বিদ্যুৎ উৎপাদনে আলোচনা চলছে

কাতারে এসে প্রথম বার হিজাব পরার অনুভূতি অনেক দর্শকের

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ নভেম্বর ২০২২  

বিশ্বকাপ দেখতে এসে জীবনের প্রথম হিজাব পরার অনুভূতি তৈরি হয়েছে নানা দেশ থেকে আসা অনেক দর্শকের। কাতারের দোহায় এসে আরব মুসলিম সংস্কৃতির অনুসরণে হিজাব পরছেন তারা। ভক্তদের হিজাব পরায় সহযোগিতা করছেন মুসলিম ভলান্টিয়াররা। হিজাব পরে ভক্তদের আনন্দঘন কিছু ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ ভাইরাল হয়। আলজাজিরা মুবাশির সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।  

আলজাজিরা মুবাশির জানায়, কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে ইসলামের পরিচিতি ও মুসলিম সংস্কৃতি তুলে ধরতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়। এরই অংশ হিসেবে হিজাব পরার অভিজ্ঞতা হয় বিশ্বকাপ দেখতে আসা অনেক নারী ভক্তের। জীবনের প্রথম হিজাব পরার অভিজ্ঞতায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন তারা।  

নারীদের কাছে হিজাবকে পরিচিত করার উদ্যোগে দায়িত্ব পালন করছেন তাসনিম নাফে। তিনি আলজাজিরা মুবাশিরকে জানান, ‘সব সংস্কৃতির প্রতি ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করতে অনেক নারী হিজাব পরার অভিজ্ঞতা হয়। তাদের অনেকে এবারই প্রথম হিজাব পরেছেন। ’ প্রথম দিকে এ উদ্যোগে অংশ নেওয়া নারীর সংখ্যা খুবই কম হলেও ধীরে ধীরে বাড়ছে বলে জানান তিনি।  

ফিফা বিশ্বকাপের ৯২ বছরের ইতিহাসে প্রথম বারের মতো উদ্বোধনী পর্বে পবিত্র কোরআনের একটি আয়াত পাঠ করা হয়। মার্কিন অভিনেতা মর্গান ফ্রিম্যান ও কাতারি তরুণ গানিম আল-মিফতাহের এক সংলাপে জাতিগত বিভেদ ভুলে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বার্তা দেওয়া হয়। বিশ্বকাপ ঘিরে দোহা ও আশপাশের শহরগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে কাতার। নানা দেশের ভক্ত ও দর্শকদের কাছে ইসলামের পরিচিতি ও মুসলিম সংস্কৃতি তুলে ধরতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে কাতারের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়।  

আরব ও ইসলামী সংস্কৃতি প্রচারের অংশ হিসেবে বিতরণ করা হচ্ছে বিভিন্ন বইপত্র ও ঐতিহ্যবাহী কাহওয়া। তা ছাড়া ‘আন্ডারস্ট্যান্ডিং ইসলাম’ নামে ছয় ভাষায় একটি ই-বুক এবং আরবি ভাষা শিখতে ‘দ্য কুইক স্টার্ট গাইড টু স্পোকেন অ্যারাবিক’ নামে ইংরেজি ও ফ্রেঞ্চ ভাষায় আরেকটি ই-বুক প্রকাশিত হয়েছে। বিভিন্ন হোটেল, স্টেশন ও দর্শনীয় স্থানগুলোতে রয়েছে এসব ই-বুকের কিউআর কোড। দোহার বিভিন্ন স্থানে সাঁটানো হয়েছে আরবি ও ইংরেজিতে মহানবী (সা.)-এর হাদিসসংবলিত দেয়ালচিত্র।