• শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • চৈত্র ৩০ ১৪৩০

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪৫

শরীয়তপুর বার্তা

কোলেস্টেরল কমাতে যে ফল খাবেন

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে নানা রকম শারীরিক সমস্যা দেখা দেয় শরীরে। এমনকি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাও কমতে থাকে। ফলে এ সময় রোগের সঙ্গে লড়াই করা অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে। আর এ সুযোগেই শরীরে বাসা বাঁধে কোলেস্টেরল।

২০১৭ সালের একটি সমীক্ষা থেকে জানা গেছে, প্রতি পাঁচজনের মধ্যে একজন কোলেস্টেরলের সমস্যায় ভুগছেন। অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, অনিয়মিত খাওয়াদাওয়ার মতো বিভিন্ন কারণে এই রোগ হয়।

কোলেস্টেরল অবহেলা করা বোকামি। চেষ্টা করতে হবে কোলেস্টেরল যাতে আপনার শরীরে হানা না দেয়। এরপরেও যদি কোলেস্টেরল ধরা পড়ে, তাহলে সাবধানে থাকতে হবে। কারণ, কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে না রাখলে আরও অনেক শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। হতে পারে হৃদ্‌রোগও। তাই কোলেস্টেরল হাতের মুঠোয় রাখা জরুরি।

কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখা সহজ নয়। দৈনন্দিন জীবনে প্রচুর নিয়ম মেনে চলা জরুরি। নয়তো কোলেস্টেরলের মাত্রা হু হু করে বাড়তে থাকবে। খাদ্যতালিকা থেকে যেমন অনেক খাবার বাদ দিতে হবে, তেমনই রাখতেও হবে বেশকিছু।

পেয়ারা

শরীর সুস্থ রাখতে পেয়ারার ওপর ভরসা রাখতে পারেন। পেয়ারার স্বাস্থ্যগুণ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। পেয়ারাতে আছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। যা কোলেস্টেরল আটকানোর সবচেয়ে বড় হাতিয়ার। ফাইবারে ভরা পেয়ারা কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। সেই সঙ্গে শরীরে ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়াতেও এর জুড়ি মেলা ভার।

কয়েকটি গবেষণা বলছে, কোলেস্টেরলের রোগীরা নিয়মিত পেয়ারা খেতে পারেন। তাতে মিলবে উপকার। পেয়ারায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট শরীরে জমে থাকা নানা রকম দূষিত পদার্থ বাইরে বার করে দেয়। তাই কোলেস্টেরল থাকলে শুধু অনেক অনেক ওষুধ না খেয়ে বরং ভরসা রাখতে পারেন পেয়ারার ওপর। উপকার পাবেন।