• রোববার   ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২৩ ১৪২৯

  • || ১৪ রজব ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০২২  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি : শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলায় মা ইলিশ রক্ষা অভিযান চলাকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আজ সোমবার (১০ অক্টোবর) আটজনের নাম উল্লেখ করে  
অজ্ঞাত ১৫০/১৬০ জনকে আসামী করে জাজিরা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল বাশার বাদি হয়ে
পদ্মা দক্ষিণ থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার তথ্য নিশ্চিত করে জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কামরুল হাসান সোহেল বলেন, ইউএনও এবং নৌপুলিশের উপর হামলা, সরকারি কর্তব্য পালনে বাঁধা, প্রাণনাশের উদ্দেশ্যে হামলা এবং আসামী ছিনতাইয়ের চেষ্টা অভিযোগে স্থানীয়দের বিরুদ্ধে মামলাটি হয়েছে।

 জাজিরা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল বাশার বলেন, এখন ইলিশের প্রজনন মৌসুম। এ সময় মা ইলিশ মিঠা পানিতে ডিম ছাড়ে। এ কারণে বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে ২৮ অক্টোবর মধ্যরাত পর্যন্ত সব ধরনের মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। এ নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে কিছু জেলে নদীতে ইলিশ শিকার করছিলেন। ইউএনওর নেতৃত্বে আমরা জাজিরায় পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাই।পাইনপাড়া এলাকায় রাতে আমাদের ওপর হামলা করেন স্থানীয়দের সহযোগীয় জেলেরা। তাই মামলাটি করেছি।

পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ইলিশ রক্ষা অভিযানে মাঝ পদ্মায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলার ঘটনায় আজ একটি মামলা করেছে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা। মামলার আসামী ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, শনিবার সন্ধ্যায় দুটি স্পিড বোট ও একটি ট্রলারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল বাশার, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জামাল হোসাইন ও মাঝিরঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে নিয়ে পদ্মা নদীতে অভিযানে নামেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কামরুল হাসান সোহেল। রাত পৌনে ১০টার দিকে পাইনপাড়া এলাকায় গেলে একটি ট্রলারে থাকা স্থানীয়দের সহযোগীতায় জেলেরা ভ্রাম্যমাণ আদালতে ওপর হামলা করেন। ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। দেশীয় অস্ত্র টেঁটা ও সুরকিও ছোড়েন জেলেরা। একপর্যায়ে হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে নৌপুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার পুলিশ সদস্যরা ওই চর থেকে তাদের উদ্ধার করে মাঝিরঘাটে নিয়ে আসে। এসময় ১০ কে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
এছাড়া মাছ ধরার একটি ট্রলার ও দুই লাখ মিটার জালও জব্দ করা হয়।