• শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪৩১

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীকে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প শোনালেন সুবিধাভাগীরা

ভেদরগঞ্জে কম্বাইন হারভেস্টার বিতরণ

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ৩ জুন ২০২৩  

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় বোরো মৌসুমে কৃষি ভর্তুকির কম্বাইন হারভেস্টার (ধান কাটা মাড়াই) মেশিন বিতরণ করা হয়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিসারের কর্যালয় চত্বরে সমন্বিত ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ প্রকল্পের আওতায় ৫০ ভাগ ভর্তুকিতে উপজেলার চরসেন্সাস  ইউনিয়নের কৃষক রফিকুল হোসনে আরা বেগম এর হাতে এ কৃষি যন্ত্রের চাবি তুলে দেয়া হয়।
প্রধান  অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে কম্বাইন্ড হারভেস্টার বিতরণ করেন  ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুন। উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ ফাতেমা ইসলাম এর  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারি কমিশনার ভুমি  ইমামুল হাফিজ নাদিম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ হাসান ইবনে আমিন, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম, সহ  কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগন।
উপজেলা কৃষি অফিসার  কৃষিবিদ ফাতেমা ইসলাম  জানান, ৩৯লাখ টাকা মূল্যে এ কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন ক্রয়ে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষককে প্রায় সাড়ে ১৫ লাখ টাকা ভর্তুকি দেয়া হয়েছে। চলতি বোরো মৌসুমে এ ধরণের আরো  যন্ত্র  কৃষককে একই ভাবে ভর্তুকি প্রদান করা হবে।
প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ফসল কাটার সময় শ্রমিক সংকট এখন বাংলাদেশে নিত্যবছরের সমস্যা। শিল্পায়নের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ প্রভাবে কয়েক দশক ধরে মানুষ শহরমুখী। তাই প্রতিনিয়ত কমছে কৃষি শ্রমিক। সামনে এ সংকট আরও বাড়বে। কেননা দেশ বর্তমানে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পথে এগুচ্ছে। এর একটা সমাধান হতে পারে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ। কেননা আধুনিক কৃষি যন্ত্রগুলো অল্প সময়ে অনেক বেশি কাজ করে। আর এগুলো চালনার জন্য লোকও লাগে কম। যে দেশের বেশির ভাগ মানুষ কৃষি পেশায় জড়িত সেই পেশার অর্থনৈতিক চিত্র পরিবর্তন করতে হলে খরচ কমাতে হবে কৃষকের। কৃষিতে যুক্ত করতে হবে প্রযুক্তির ছোঁয়া। কৃষিকে যান্তিকিকরণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন ভাবে ভর্তুকি দিচ্ছেন। আজকের এরই অংশ হিসেবে যন্ত্রটি বিতরণ করলাম।