• শনিবার ০২ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৮ ১৪৩০

  • || ২০ শা'বান ১৪৪৫

শরীয়তপুর বার্তা
ব্রেকিং:
বেইলি রোডে অগ্নিকান্ড কবলিত ভবনে ফায়ার এক্সিট না থাকায় হতাশ নতুন নতুন অপরাধ দমনে পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ পণ্যমূল্য সহনীয় রাখতে সরকারের পাশাপাশি জনগণেরও নজরদারি চাই রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে থাকবে পুলিশকে জনগণের বন্ধু হয়ে নিঃস্বার্থ সেবা দেয়ার নির্দেশ রাষ্ট্রপতি বিশ্বের সম্ভাব্য সকল স্থানে রপ্তানি বাজার ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা জরুরি গভীর সমুদ্র থেকে গ্যাস উত্তোলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার পুলিশ জনগণের বন্ধু, সে কথা মাথায় রেখেই দায়িত্ব পালন করতে হবে অপরাধের ধরন বদলাচ্ছে, পুলিশকেও সেভাবে আধুনিক হতে হবে

আমায় মারতে চাইলে গুলি করেন, বোমা মাইরেন না: শামীম ওসমান

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০২৩  

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে ফের আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন, নির্বাচনকে ঘিরে আগামী ১৫ থেকে ২০ দিন কিছু নির্মম ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড করার চেষ্টা করা হবে। বাংলাদেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্র বানাতে চেষ্টা করা হবে। প্লিজ নারায়ণগঞ্জের ভাইয়েরা এগুলো করবেন না। যা করেছেন, করে ফেলেছেন। আর না। নিরাপরাধ কাউকে কিছু করবেন না। কিন্তু যারা অপরাধী তাদের ছাড় দেয়া হবে না। যারা আমাকে মারতে চান মারেন, ডাইরেক্ট গুলি করেন সমস্যা নাই, আমাকে একা মারেন। কাপুরুষের মতো বোমা হামলা কইরেন না। এতো মানুষ মাইরেন না।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব ভবনে একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, যারা এসব নির্মম ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড করাবে, তারা কিন্তু আড়ালেই থাকবে। যারা করবে তারা ফেঁসে যাবে। আমাদের এলাকার পাগলদেরও আমরা চিনি। আমি যদি বলি পাঁচ মিনিটে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির প্রতিটি নেতাকর্মীর বাড়িতে হামলা হবে। তখন দোষ কার হবে, আমার হবে। যারা বাইরে থেকে নির্দেশ পেয়ে অরাজকতা করছে তারা কিন্তু ছাড় পাবে না। এবার ক্ষমতায় আসলে দু’টি জিনিস ছাড় দেয়া হবে না। একটা মানি লন্ডারিং আর আরেকটা দুর্নীতি।

নির্বাচন বানচাল করতে সারা দেশে যারা আগুন সন্ত্রাস করছে তাদের নির্দেশদাতা ও অপরাধীদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, তাদের সবাইকে রাষ্ট্রীয়ভাবে আদালতের মাধ্যমে বিচারের আওতায় আনা হবে। পাশাপাশি মানি লন্ডারিং, দুর্নীতিবাজ ও মুনাফাখোরদের উদ্দেশ্যেও একইভাবে হুঁশিয়ারি দেন এ সংসদ সদস্য।

নিজ আসনে উন্নয়নের বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, এ কে এম শামসুজ্জোহা সড়ক ও নাগিনা জোহা সড়ক সম্পন্ন হওয়ার পরে মানুষ ঘুরতে যাবে সেখানে। মুন্সীগঞ্জ অভিমুখী ২৬০০ কোটি টাকার রাস্তা হচ্ছে। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়ক আরসিসি হবে। ডাবল লাইন রেললাইন করেছি। মেট্রোরেলকে নারায়ণগঞ্জ অবধি নিয়ে আসবো।

এবারের নির্বাচনে অন্তত তার আসনে শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটের নিশ্চয়তা দিয়ে শামীম ওসমান বলেন, নির্বাচন সঠিক সময়ে হবে। আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলছি নির্বাচন ১০০ ভাগ ফ্রি ও ফেয়ার হবে। ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারেন সেই পরিবেশ সৃষ্টি করা হবে। কোনো কেন্দ্রে কোনো ধরনের কারচুপি হতে দেয়া হবে না। আমি এখনও বিশ্বাস করি তবে বিএনপি নির্বাচনে আসবে। বিএনপি যদি স্টুপিড না হয় তবে নির্বাচনে তারা আসবে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে খলনায়ক আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, তার (তারেকের) মায়ের প্রতিই টান নেই। তারেক খলনায়ক হিসেবে পারফেক্ট। ২১ আগস্ট বোমা হামলা করে ২৪ জনকে মেরেছেন, তালেবান- উলফাদের আশ্রয় দিয়েছেন। সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে তারেকের কোনো মতই মেলে না। নারায়ণগঞ্জ বিএনপির যেসব ছেলেপেলে আছেন তারা প্লিজ কারো কথা শুনে নাচবেন না।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনকে উদ্দেশ্য করে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বলেন, নারায়ণগঞ্জের একজন এমপি ছিলেন। এক সময় জাতীয় পার্টি করতেন, তারপর আওয়ামী লীগ, বিএনপি আবারো আওয়ামী লীগ হয়ে বিএনপিতে। এখন নাকি নতুন দলে ভিড়তে চাচ্ছে। তৃণমূল, বিএনএফে নক করছেন এখন। এতো বড় পল্টিবাজ, তাই তাকে আর কেউ নিতে চাচ্ছে না। তার আমলে আমাদের সুন্দর আলী ভাইকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিলো। বিএনপির তৈমূর সাহেবের ছোট ভাই, কোনো দল করতো না। মাদকের বিরুদ্ধে কথা বলায় তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের বারো জন লোককে মারা হয়েছে।

তিনি বলেন, যারা মানবাধিকারের কথা বলে, আমাদের নজরুল ইসলাম সুইটকে জেলখানা থেকে রিমান্ডের নাম করে নিয়ে ডান্ডাবেড়ি পরা অবস্থায় গুলি করে হত্যা করা হয়। এর চেয়ে বড় আইনের ধর্ষক হতে পারে না। এখন উনি নতুন নাটক করছেন। মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন কি দেন নাই, আমার ব্যাপার না। মনোনয়নপত্র জমা না হওয়া পর্যন্ত তা বাতিল করার কোন প্রশ্নই ওঠে না। এটা স্ট্যান্ডবাজি হচ্ছে।

শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে জঙ্গিবাদ ছিলো না যখন তৈমূর ভাই, সিরাজ ভাই ও কালাম ভাইরা দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৯৬ সালে আমি পাশ করার পর বিএনপির সদ্য সাবেক সাংসদ সিরাজ ভাইকে সালাম করেছি। এটা ছিলো নারায়ণগঞ্জের কালচার। সে সময় কোনো সহিংসতা হয়নি। আমরা চেয়েছি সহবস্থানে থাকতে। কিন্তু হঠাৎ নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে চেঞ্জ আসে। ডিজিটাল যুগে দেশে আঠারো কোটি ক্যামেরা আছে। রাজনীতির নামে বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী নারায়ণগঞ্জে কোথায় ছিলো আমরা জানতাম। দেখতে চেয়েছিলাম শুধু কী করে।

তিনি বলেন, এই ভদ্রলোক (গিয়াসউদ্দিন) সভাপতি হওয়ার পর কাঁচপুরে ঘটনা ঘটিয়ে ওরা আড়াইহাজার যায়। সেখানে এক পুলিশ সদস্যকে নির্মমভাবে মারতে দেখা গেল। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হতেই পারে। কিন্তু আমরা কি পশু হয়ে গেলাম? ঢাকায় একজন পুলিশকে নির্মমভাবে কোপানো হলো। এগুলো আমরা দেখেছি।

সংসদ সদস্য বলেন, আমার যাওয়ার সময় হয়ে গেছে। আমার পরিবারের সদস্যরা এই বয়সেই চলে গেছেন। আমার বয়স ৬২ বছর ৯ মাস। যেকোনো সময় আল্লাহর ডাক আসতে পারে। তাই আল্লাহকে খুশি করে যাওয়া উচিত। প্লিজ আমাকে কাজ করার সুযোগ দিন। মানুষমাত্রই ভুল হয়। আমি কোনো ভুল করে থাকলে ক্ষমা করে দিয়েন। মৃত্যুর পরে যেন সূরা ফাতিহা পড়ে আমার জন্য দোয়া করে মানুষ, এটিই আমার চাওয়া।

তিনি বলেন, আমি চাই কোনো নিরপরাধ ব্যক্তি যেন মামলার আসামি না হয়। কোনো নিরপরাধ ব্যক্তি যদি এক ঘণ্টার জন্যও শাস্তি পায় সেটা খারাপ। আমি পুলিশ প্রশাসনসহ সকলকে এ ব্যাপারে খেয়াল রাখতে অনুরোধ করছি।

ত্বকী হত্যাকাণ্ডের দিকে ইঙ্গিত করে শামীম ওসমান বলেন, আমাদের তো একটা মহল সবসময় গালাগালি করেই যাচ্ছে। অসুবিধা নাই, দেন গালি। আমরা জানি সব কিছু। ওই সময়ে আমি দুবাই ছিলাম। তবুও কোথাও পাল্টা জবাব দিইনি।

নারায়ণগঞ্জকে মাদকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, এবার নির্বাচিত হলে বা না হলে নারায়ণগঞ্জকে মাদকমুক্ত করতে চাই। এত টাফ হয়ে গেছে ব্যবসায়ীদের ধরা, শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এরা মাদক রাখে। সাংবাদিকদের মধ্যেও অনেকে মাদকে জড়িত।

নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর বিষয়ে এই আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, আব্বা-আম্মা ও আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের কবর জিয়ারত করে প্রচার শুরু করবো।