• বুধবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

শরীয়তপুরের ১৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হলেন যারা

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ ডিসেম্বর ২০২১  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার বারোটি ও  ডামুড্যায় উপজেলার সাতটি মোট ১৯টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে কোনো দলীয় প্রতীক ছিল না। দলীয় প্রতীক ছাড়া অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয় রোববার (২৬ ডিসেম্বর) রাতে। দুই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী বেসরকারিভাবে নির্বাচিতরা হলেন- ভেদরগঞ্জ উপজেলার চরভাগা ইউনিয়নে বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান সিকদার (মোটরসাইকেল), সখিপুর ইউনিয়নে কামরুজ্জামান মানিক সরদার (আনারস), উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়নে আলহাজ্ব ইউনুছ আলী মোল্লা (মোটরসাইকেল), দক্ষিন তারাবুনিয়া ইউনিয়নে মো. শাহজালাল মাল (মোটরসাইকেল), আরশীনগর ইউনিয়নে মো. মাহাবুবুল আলম আলম সরদার (মোটরসাইকেল), নারায়নপুর ইউনিয়নে মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন মাতাব্বর (অটোরিকশা), রামভদ্রপুর ইউনিয়নে মো. বিপ্লব সিকদার (চশমা), চরসেনসাস ইউনিয়নে মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বালা (মোটরসাইকেল), ছয়গাঁও ইউনিয়নে মো. কামরুজ্জামান লিটন মোল্লা (চশমা), ডিএম খালি ইউনিয়নে মহসিন হক আবু বেপারী (মোটরসাইকেল), চরকুমারিয়া ইউনিয়নে মো.  মোজাম্মেল হক মোল্যা (মোটরসাইকেল), মহিষার ইউনিয়নে হাজী মো. অরুন হাওলাদার (ঘোড়া), ডামুড্যা উপজেলায় ইসলামপুর ইউনিয়নে মো. আবুল হোসেন মোল্লা (চশমা), কনেশ্বর ইউনিয়নে মো. আনুছুর রহমান বাচ্চু মাদবর (চশমা), শিধলকুড়া ইউনিয়নে শেখ মো. মাসুদুল ইসলাম বাবুল (আনারস), ধানকাঠি ইউনিয়নে গোলাম মাওলা রতন (ঘোড়া), পূর্বডামুড্যা ইউনিয়নে মাসুদ পারভেজ লিটন (চশমা), সিড্যা ইউনিয়নে সৈয়দ আব্দুল হাদী জিল্লু (ঘোড়া), দারুল আমান ইউনিয়নে মো. মমিনুল হক মিন্টু সিকদার (চশমা)।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহিদ হোসেন করে বলেন, ১৯টি ইউনিয়ন পরিষদে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোথাও কোনো বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলায় ৭টি ও ভেদরগঞ্জ উপজেলার ১২টি মোট ১৯ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৯৬ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৫২৫ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ২৭৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। দুই উপজেলার ১৯ ইউনিয়ন পরিষদে ১ লাখ ৯৪ হাজার ৯৩৯ জন ভোটার তাদের পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৬৭ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লাখ ২৮ হাজার ১৪৪ জন। দুই উপজেলার ১৯ ইউনিয়নের ১৭৭ টি ভোট কেন্দ্রের ৮১২ কক্ষে ভোট গ্ৰহন করা হয়।