• মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা

শরীয়তপুরে চোরচক্রের পাঁচ সদস্য গ্রেফতার, বাইক-অটোরিকশা উদ্ধার

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ১৮ জুলাই ২০২২  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি :

শরীয়তপুরে চোরাই ছয় মোটরসাইকেল ও একটি অটোরিকশাসহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের সক্রিয় পাঁচ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। গত কয়েকদিনে শরীয়পুরের পালং, ভেদরগঞ্জ ও নড়িয়া এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।  

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার কোড়ালতলী গ্রামের মৃত সিকিম আলী ব্যাপারীর ছেলে মো. আব্বাস ব্যাপারী (৪০), সখিপুর থানার আনু সরদার কান্দি গ্রামের মজিদ খাঁর ছেলে দুলাল খাঁ (২৬), নড়িয়া উপজেলার পোড়াগাছা গ্রামের গোলাম মাওলা মাদবরের ছেলে স্বপন মাদবর (৩৫), সদর উপজেলার বিনোদপুর কাজীকান্দি মৃত আইনুদ্দিন তালুকদারের ছেলে দবির তালুকদার (৪৮) ও পটুয়াখালী জেলার দশমীনা থানার সানকিপুর হাওলাদার বাড়ী গ্রামের সালাম চৌকিদারের ছেলে মো. খায়রুল চৌকিদার (২৪)।

আজ সোমবার (১৮ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টায় শরীয়তপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে পুলিশ সুপার এসএম আশরাফুজ্জামান প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

এসএম আশরাফুজ্জামান জানান, দীর্ঘদিন ধরে শরীয়তপুরের বিভিন্ন উপজেলাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা  থেকে মোটরসাইকেল, অটোরিকশা চুরি করে এনে বিক্রি করে আসছিল চক্রটি। 

চোরাই মোটরসাইকেল চক্রের মূল হোতা আব্বাস ব্যাপারী। তার বিরুদ্ধে হত্যা, মাদক, অস্ত্র, ডাকাতি ও চরিসহ বিভিন্ন আইনে ১৮টি মামলা রয়েছে। এছাড়া দুলাল, স্বপন ও খায়রুলের বিরুদ্ধে মাদক ও চুরির ছয়টি মামলা রয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠোনো হবে।

 

এসময় নড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম মিজানুর রহমান, নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। 

নড়িয়া মডেল থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) হায়দার বলেন, গত ৪ জুলাই নড়িয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ব্যাপারীর বাড়ি থেকে তার মোটরসাইকেল চুরি হয়। পরে তিনি ওই দিন নড়িয়া থানায় একটি মামলা করেন। পাঁচঘন্টা পর শরীয়তপুর শহরের ফাতেমা মেডিকেল সেন্টারের কাছ থেকে ওই চোরাই মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করি। এছাড়া সম্প্রতি নড়িয়া উপজেলার নরকলিকাতা গ্রামের সাবেক আইজিপি শহীদুল হক স্যারের বাড়ি থেকে 

দুটি মোটরসাইকেল চুরি হয়। মামলার পর থেকে মোটরসাইকেল চোর চক্রটিকে ধরতে চেষ্টা করি। 

গত কয়েকদিনে পুলিশের একটি দল জেলার পালং, ভেদরগঞ্জ ও নড়িয়া এলাকা থেকে ছয়টি মোটরসাইকেল ও একটি অটোরিকশাসহ চোর চক্রের পাঁচ জনকে গ্রেফতার করি। গ্রেফতার করে নড়িয়া থানায় তাদের নিয়ে আসি।