• শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৬ ১৪২৯

  • || ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শরীয়তপুর বার্তা

শরীয়তপুরে দুই ইউপিতে জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক, ভূয়া রেজিষ্ট্রেশন ৮০৮টি

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট ২০২২  

শরীয়তপুর প্রতিনিধি : শরীয়তপুরে দুইটি ইউনিয়ন পরিষদে জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক করা হয়েছে। হ্যাক করে হ্যাকাররা ৮০৮টি ভূয়া রেজিষ্ট্রেশন করেছে। এতে করে ১১দিন যাবত ইউনিয়ন পরিষদ বাসিন্দারা জন্মনিবন্ধন পেতে বঞ্চিত হচ্ছে। শুধু তাই নয় জন্মনিবন্ধনের কারণে নতুন ভোটার হালনাগাদও বন্ধ রয়েছে। জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক করে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ার চেষ্টা করছেন বলে মনে করছেন অনেকেই।

ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, নড়িয়া উপজেলার বিঝারি ও ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক হয়েছে। গত ১৫ আগস্ট বিঝারি ও ১৯ আগস্ট ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক হয়। জন্মনিবন্ধন পেতে বঞ্চিত ইউনিয়নবাসী। শুধু তাই নয় জন্মনিবন্ধনের কারণে নতুন ভোটার হালনাগাদ, পাসপোর্টসহ অন্যান্য কার্যক্রম স্থবির হয়ে পরেছে। হ্যাক হওয়ার ঘটনায় নড়িয়া থানায় অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানরা। অভিযোগ বলা হয়েছে, জন্মনিবন্ধন পার্সওয়ার্ড হ্যাগ করে বিঝারি ৩৯২টি ও ফতেজঙ্গপুর ৪১৬ টি মোট ৮০৮টি ভূয়া জন্মনিবন্ধন  রেজিষ্ট্রেশন করা হয়েছে। ওইগুলো আমাদের ইউনিয়নের নিবন্ধন নয়। জন্মসনদ ডাউনলোড করে দেখা যায় মুন্সিগঞ্জ, শিরাজগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার ঠিকানায় রেজিষ্ট্রেশন করা হয়েছে। যা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সচিব অবগত নয়। জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক করে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ার চেষ্টা করছেন বলে মনে করছেন অনেকে। এর দ্রুত সমাধান চান চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসী।

পরিষদে জন্ম নিবন্ধন নিতে আশা মিজানুর রহমান, নিলয়সহ অনেকে বলেন, কয়েকদিন যাবত জন্ম নিবন্ধন নিতে এসে ফিরে যাচ্ছি। এসে শুনলাম সার্ভার হ্যাক হয়েছে। জন্ম নিবন্ধন খুবই প্রয়োজন ছিল। কবে সার্ভার ঠিক কে জানে। হ্যাক করে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ার চেষ্টা করছেন নাকি কি যানে।

বিঝারি ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোলিনা নাসরিন বলেন, এক অপরিচিত ব্যক্তি আমার মোবাইলের ইমুতে কল দেয়। আর আমাকে বলেন, আপনাদের জন্ম নিবন্ধন সার্ভার হ্যাক হয়েছে আপনি জানেন। পরে আমি সার্ভারে ঢুকে দেখি হ্যাক হয়েছে।

ফহেজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শওকত হোসেন জুয়েল শিউলি বলেন, গত ১৯ আগস্ট সকালে আমার ইউনিয়নের জন্মনিবন্ধন সার্ভার হ্যাক হয়। আমি তাৎক্ষণিক নড়িয়া থানায় অভিযোগ করি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানাই।

বিঝারি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান  আলী আহাম্মেদ কাজী বলেন, বর্তমানে আমার ইউনিয়নের জন্ম নিবন্ধন সার্ভার বন্ধ আছে। আমার ইউনিয়নের অনেকের জন্মনিবন্ধন অতি জরুরী দরকার। কিন্তু দিতে পাচ্ছি না।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন শরীয়তপুরের সভাপতি অ্যাড. মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, আমার ধারনা রোহিঙ্গা গোষ্ঠী যেকোন উপায়ে হোক সার্ভার হ্যাক করে এই অপ্রীতি ঘটনাগুলো ঘটাতে পারে। যারা এঘটনা ঘটাচ্ছে তাদের অচিরেই যদি সনাক্ত করা না যায় তাহলে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের আনাচে-কানাচেতে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা রয়েছে। সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে দাবি, দ্রুত হ্যাকারদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হোক।

নড়িয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নিহার রায় বলেন, ভূয়া জন্মনিবন্ধন দিয়ে রোহিঙ্গাদের ভোটার হওয়ার কোন সুযোগ নেই। তবুও আমরা ওই সময়ের মধ্যে যে জন্মনিবন্ধন হয়েছে তা যাচাই-বাছাই করবো। আমাদের উপজেলা অফিসের পুরো সেটাপটাই নতুন। নির্বাচন অফিসের কেউ সংশ্লিষ্ট হওয়ার সুযোগ নেই। তারপরও কোন অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ রাশেদুজ্জামান বলেন, দুইটি ইউনিয়নে জন্মনিবন্ধন হ্যাক হয়েছে। তাৎক্ষণিক জেলা প্রশাসক স্যারকে জানিয়েছি। ভূয়া রেজিষ্ট্রেশন গুলো বাদ দেয়ার জন্য উর্ধতন কর্মকর্তাকে চিঠি দেয়া হয়েছে। আইনগতভাবে এবিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।