• বুধবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শরীয়তপুর বার্তা

সেন্টমার্টিনের জাহাজ ভাড়া ও দরকারি তথ্য

শরীয়তপুর বার্তা

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০২১  

সেন্টমার্টিন—বাংলাদেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ। যার চারপাশে সাগর আর আকাশের নীল মিলেমিশে একাকার। প্রকৃতি দুই হাত মেলে যেন সৌন্দর্য ঢেলে দিয়েছে এখানে। এই দ্বীপে সারি সারি নারিকেল গাছ, ঝাঁকে ঝাঁকে উড়ে চলা গাঙচিল। সৈকতে বসে স্নিগ্ধ বাতাসে গা জুড়িয়ে নেয়া, কেয়া বন আর সাগরলতার মায়াময় স্নিগ্ধতায় মন জুড়িয়ে যায় নিমিষেই।

সেন্টমার্টিনের রূপ-লাবণ্য দেখতে প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক বঙ্গোপসাগরে পাড়ি জমান। বর্তমানে কক্সবাজার, টেকনাফ ও চট্টগ্রাম থেকে সেন্টমার্টিন যাওয়ার জাহাজ আছে। তবে সময় ও ভাড়া বিবেচনায় বেশিরভাগ পর্যটক টেকনাফ থেকে চলাচল করে।

নিচে টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনে চলাচলকারী জাহাজের ভাড়া উল্লেখ করা হলো-

কেয়ারি ক্রুজ এন্ড ডাইন

শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত জাহাজটিতে ৩১০টি সিট আছে।

* মেইন ডেক (এক্সক্লুসিভ লাউঞ্জ) ১ হাজার ১০০ টাকা
* আপার ডেক (কোরাল লাউঞ্জ) ১ হাজার ৩০০ টাকা
* আপার ডেক (পার্ল লাউঞ্জ) ১ হাজার ৬০০ টাকা

কেয়ারি সিন্দাবাদ

ননএসি কেয়ারি সিন্দাবাদ টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটের সবচেয়ে পুরনো ও জনপ্রিয় একটি জাহাজ। এ জাহাজের টিকেট মূল্য বাকি সকল জাহাজের তুলনায় কম।

* মেইন ডেক- ৮৫০ টাকা
* ওপেন ডেক- ১০০০ টাকা
* ব্রিজ ডেক- ১ হাজার ১০০ টাকা

এম ভি বে ক্রুজ-১

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটের সবচেয়ে দ্রুতগতির জাহাজের নাম এম ভি বে ক্রুজ-১। সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ জাহাজের টিকেটের মূল্য তুলনামূলক বেশি।

* রজনীগন্ধা- ১ হাজার ৩০০ টাকা
* হাসনাহেনা- ১ হাজার ৪০০ টাকা
* কৃষ্ণচূড়া- ১ হাজার ৬০০ টাকা

দ্যা আটলান্টিক ক্রুজ

সেন্টমার্টিন রুটে সবচেয়ে জনপ্রিয় জাহাজের নাম আটলান্টক ক্রুজ। যার পূর্ব নাম ছিল এল.সি.টি কুতুবদিয়া। এসি/ননএসি সুবিধাযুক্ত এই জাহাজটি এই রুটের বৃহৎ শিপ হিসাবে খ্যাত।

* ইকোনমি ডেক- ৭৫০ টাকা
* ওপেন ডেক- ৮৫০ টাকা
* রয়েল লাউঞ্জ- ১ হাজার ৫০ টাকা
* লাক্সারি লাউঞ্জ- ১ হাজার ৩৫০ টাকা

এম ভি ফারহান

জলপথে চলাচলকারীদের কাছে এম ভি ফারহান একটি পরিচিত নাম। নন-এসি এ জাহাজটি বেশ দ্রুততার সাথে সেন্টমার্টিন গমন করে।

* মেইন ডেক- ৬৫০ টাকা
* ওপেন ডেক- ৮৫০ টাকা
* ব্রিজ ডেক- ৯০০ টাকা

কীভাবে টিকেট করবেন

কেয়ারি ছাড়া অন্য জাহাজগুলোর বর্তমানে অনলাইনে অগ্রিম টিকেট কাটার সুযোগ নেই। তবে সরাসরি তাদের অফিসে গিয়ে অগ্রিম টিকেট নিতে পারবেন। এছাড়া বিভিন্ন এজেন্টদের কাছ থেকে উপরোক্ত শীপগুলোর অগ্রিম টিকেট নিতে পারবেন।